২৩, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১

শুভ জন্মদিন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি

ফয়েজ আহাম্মেদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ পুরো নাম লিওনেল আন্দ্রেস মেসি কুচেত্তিনি। ফুটবলবিশ্ব তার মেসি নামটিতে মোহাচ্ছন্ন। তার বাঁ-পায়ের জাদুতে মোহাবিষ্ট পুরো পৃথিবী।ফুটবলপ্রেমীদের মতে, অধরা বিশ্বকাপ ছুঁতে পারলেই পেলে, ম্যারাডোনাকে ছুঁয়ে ফেলবেন মেসি। ভক্তদের হৃদয়ে মেসিকে ম্যারাডোনার চেয়েও বড় করে দেখতে ইচ্ছুক। তবে এটি নিয়ে তর্কবিতর্ক থাকলেও চলতি শতাব্দীর সেরা খেলোয়াড়ের নাম জিজ্ঞেস করা হলে নিশ্চিতভাবেই ওপরের দিকে থাকবেন মেসি। এ নিয়ে ফুটবলবিশ্ব একমত অবশ্যই।আজ বর্তমান সময়ের বিশ্বসেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসির শুভ জন্মদিন।

১৯৮৭ সালের ২৪ জুন আর্জেন্টিনার রোজারিও শহরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।হোর্হে মেসি ও সেলিয়া কুচেত্তিনির কোল আলোকিত করে এক ফুটবল রূপকথার উপাখ্যান শুরু। মেসি তাদের তৃতীয় সন্তান।জন্মের পর আর সব শিশুর মতো ছিলেন না মেসি। দৈহিক গড়নে অস্বাভাবিকতা ধরা পড়ে তার। ছোটবেলা থেকেই যে বিষয়টিকে তিনি ভালোবাসেন সেটিকে খুব সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পারতেন তিনি। আর ফুটবল প্রিয় দেশটির এই শিশুর ভালোবাসার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়ায় ফুটবল।মাত্র ছয় বছর বয়সে নিজের প্রিয় ক্লাব নিউ ওয়েলস ওল্ড বয়েজের জার্সি পরে মাঠে নামেন মেসি। মাত্র ১৩ বছর বয়সে টিস্যু পেপারে চুক্তিবদ্ধ হন স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার সঙ্গে। এর পর থেকে স্বর্ণাক্ষরে লিখিত হতে থাকে মেসির দুই পায়ের ছন্দ।লিওলেন মেসি ক্যারিয়ারে চারটি ইউরোপিয়ান কাপ, আটটি লিগ টাইটেল, তিনটি ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ, পাঁচটি ব্যালন ডি'অর জিতেছেন।গত দেড় যুগে বার্সেলোনার হয়ে মেসি জিতেছেন অসংখ্য শিরোপা। নিজে পৌঁছেছেন ফুটবলীয় শ্রেষ্ঠত্বের শিখরে। মেসি এবং বার্সেলোনা যখন সমার্থক শব্দে পরিণত হচ্ছিল, তখন স্পেনের জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পেয়েও নিজ জন্মভূমি আর্জেন্টিনাকেই বেঁছে নিয়েছিলেন মেসি।বিশ্বকাপে মেসির সেরা অর্জন ২০১৪ সালের দেশকে ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে নিয়ে যাওয়া। ফুটবল বিশ্বকাপের গোল্ডেন বল জেতার রেকর্ডও রয়েছে তার।আর বার্সেলোনার হয়ে মেসির সাফল্য লিখতে গেলে তা ভলিউমে রূপ নেবে।

দলীয় সাফল্যে ৯ বার লা লিগা চ্যাম্পিয়ন, চারবার চ্যাম্পিয়নস লিগ চ্যাম্পিয়ন, ছয়বার কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন, সাতবার স্প্যানিশ সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন, তিনবার ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ও তিনবার উয়েফা সুপার কাপ জিতেছেন মেসি। ১৬ বার বার্সেলোনার সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন মেসি।তবে রাশিয়া বিশ্বকাপে দলকে এগিয়ে নিতে পারেননি তিনি।