২০, জানুয়ারী, ২০২০, সোমবার | | ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

রোগ্রেসিভ হিউমেনিস্ট জার্নি’র যাত্রা শুরু


 ফয়েজ আহাম্মেদ, বিশেষ প্রতিনিধি::    ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার মহান বিজয়ের মাসে আনুষ্ঠানিক ভাবে কেক কাটার মাধ্যমে প্রোগ্রেসিভ হিউমেনিস্ট জার্নি (প্রগতিশীল মানবিকতার যাত্রা) শুভ উদ্ভোধন সম্পূর্ণ হয়েছে।এ উপলক্ষ্যে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ সবুজ আন্দোলন মিলায়তনে ‍”মূল্যবোধের অবক্ষয় ও উত্তরণের উপায়” শীর্ষক আলোচনাসভা ও পরিচিতি পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের উদ্যোক্তা এই প্রজন্মের তরুন কবি ও অভিনেত্রী শ্রুতি খান। মিডিয়া পাটনার হিসাবে ছিলো সবুজ বার্তা। প্রধান আলোচক ছিলেন, এই সময়ের কলম যোদ্ধা একুশে পদক প্রাপ্ত এবং বাংলা একাডেমি পুরুষ্কার প্রাপ্ত শুদ্ধ কবি সাহিত্যিক শ্রদ্ধেয় আসীম সাহা। শুভেচ্ছা বক্তব্য দিয়েছেন, সবুজ আন্দোলনের চেয়ারম্যান বাপ্পি সরদার।আলোচক হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, সমাজ সেবী জোবাইদা খাতুন, কমিউনিস্ট লিডার এম এ সামাদ, এবং বিশিষ্ট লেখক গবেষক প্রকাশক শামীম সাহেব। উপস্থাপনা এবং সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন সাংবাদিক এস এম মমিন আনসারী।অনুষ্ঠানের মূল আলোচ্য বিষয় ছিলো মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয় থেকে উত্তরনের উপায় ও শ্লোগান ছিলো “সকল সৃষ্টিকে নিরাপদ করি এবং সুন্দর আগামী পৃথিবী গড়ি”। যারা এই সংগঠনটির সমন্বয়ে ছিলেন তাদের বক্তব্যে মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব পায়।সভায় সদস্য বৃন্দ এবং গুনীজনরা তাদের আলোচনায় বলেন, প্রতিটি মানুষ তার নিজ পরিবার থেকে বেড়ে উঠে। তারপর পারিপার্শ্বিক পরিবেশের সঙ্গে পরিচিত হয়। সকল মানুষ যদি একে অন্যের প্রতি সদা চরন বজায় রাখে এবং সু শিক্ষায় শিক্ষিত করে। সচেতনতা পরিবার থেকেই শুরু হয় তাহলে সুন্দর আগামীতে আমারা সুন্দর ও সুশীল সমাজ গড়তে পারবো। মূল্যবোধ রোধকরতে সক্ষম হবো। নতুন প্রজন্নদের প্রাথমিক শিক্ষা ব্যাবস্থা যদি এক নীতিতে চালু করা যায় তাহলে সামপ্রদায়িক বৈষম্য কমানো সম্ভব। মানুষকে অর্থ দিয়ে মূল্যায়ন না করে ভালো মানুষ হিসাবে মূল্যায়ন করতে পারলে মানুষের প্রতি মানুষের উঁচু নীচু ভেদাভেদ দূর কথা সম্ভব। খাদ্যে ভেজাল রোধে মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত করতে হবে। সকল শিশুদের প্রতি সদয় হতে হবে। নারী শিক্ষা কে অনেক বেশী গুরুত্ব দিতে হবে। কারন প্রতিটি নারীকে সু শিক্ষায় শিক্ষিত হলে তাদের সন্তানদের সঠিক শিক্ষায় মানুষ করতে পারবে। পরিবেশ সংরক্ষণের বিষয়ে সকলের সচেতনতা বৃদ্ধি করা জরুরী।