২৩, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১

কানসাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীর রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০১৯

কানসাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীর রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ

শিবগঞ্জ উপজেলার শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী কানসাট উচ্চ বিদ্যালয়। কালের স্বাক্ষী হয়ে বিদ্যালয়ের ভবনগুলো দাঁড়িয়ে থাকলেও নেই কোন জৌলুশ এমন কি শিক্ষা-দিক্ষায় যেখানে বিদ্যালয়টির নামে সুনামে যশ খ্যাতি অর্জন কম ছিলনা। কিন্তু এখন বিদ্যালয়টির নেই কোন জৌলুশ ও সুনাম। কারন নেয় পর্যাপ্ত পরিমান শিক্ষক যা আছে তাও আবার সবাই সবার মনমতো ক্লাশ করে। কেউ করলেও কিছু করার নেই না করলেও কিছু করার নেয়। তাহলে কি বিদ্যালয়টি স্ট্যাচু হয়ে দাঁড়িয়ে থাকবে! না বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ২৬ মার্চ উপলক্ষে খেলাধুলা করতে চাইলে বাধ,সাধেন প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহজাহান আলী। কোন রকম খেলোধুলা হবেনা বলে জানিয়ে দেন ,শুধু তাই নয় উচ্চস্বরে ছাত্র-ছাত্রীদের গালিগালাজ করেন। এমন পর্যয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা বিক্ষোভে নেমে পড়ে রাস্তায়। স্লোগান দিতে থাকে “আমাদের দাবী মানতে হবে,মানতে হবে। বিক্ষোভকৃর্ত ছাত্র-ছাত্রীদের রিফাত,মালেক,আমিন,করিম,আজম,সাইদ ও অকিলের কাছে জানতে চাইলে মৌটিভির প্রতিবেদকে জানান, প্রতিটি জাতীয় দিবসে পালন ও খেলাধুলা নেই কেন ? পূনাঙ্গ ক্লাস নেই কেন? বিজ্ঞানের কোন চিটার নেই কেন? ব্যবহারিক ক্লাস নেই কেন? আমরা (ছাত্র-ছাত্রী) প্রধান শিক্ষকে প্রশ্ন করলে,প্রধান শিক্ষক বলেন আমি কি জন্ম দিয়ে টিচার নিয়ে আসবো । খেলাধুলা করবো বললে বলে তোর বাপের কি ক্লাস করবে। কিন্তু শিক্ষরা স্কুলে বসে থাকলে সারা দিনে মাত্র দু-একটি ক্লাস হয়। শিক্ষকরা ক্লাস না করে আরাম আয়েশে দিন পার করেন।

ছাত্র-ছাত্রীদের বিক্ষোভ করার সময় এ.এস.পি ইকবাল হোসেন ওপরওয়ালার দূত হিসেবে হাজির হন বিদ্যালয়ের সামনে রাস্তায় বসে থাকা ছাত্র-ছাত্রীর সামনে। গাড়ি থেকে নেমে ছাত্র-ছাত্রীদেক কথা শুনে সঙ্গে করে নিযে যান প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহজাজান আলীর কাছে। এএসপি ইকবাল হোসেন জানতে জাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন আমি কিছুই জাননা। এরক কথা শুণে ছাত্র-ছাত্রীরা আবার বিক্ষোভ শুরু করে। ইতো মধ্যে এএসপি ইকবাল হোসেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপার ও শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তকে ফোনে বিষয়টি অবগত করেন।এবং বলেন তোমাদের দাবি দেওয়ার ব্যাপারে আমরা ব্যবস্থা নিবো। এএসপি ইকবাল হোসেনের আশ্বাসে ছাত্র-ছাত্রীরা বিক্ষোভ স্থগিত করে।