৮, ডিসেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

তরমুজের বাম্পার ফলনের আশা করছে চাষিরা

আপডেট: এপ্রিল ২৯, ২০১৯

তরমুজের বাম্পার ফলনের আশা করছে চাষিরা

আসাদ হোসেন রিফাত,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার তিস্তা ও আদিতমারীর ধরলা নদী বালুচরে এবারো তরমুজ চাষ হয়েছে। তরমুজের বাম্পার ফলনের আশা করছে চাষিরা।

জানা গেছে, বালুচরে সারিবদ্ধ ভাবে গর্ত করে জৈব সার দিয়ে তরমুজের বীজ রোপণ করে চাষিরা। এরপর নিয়মিত সেচ দেয়। চারা বড় হলে তা বালুর উপরে বাড়তে থাকে। ৪-৫ মাসের মধ্যেই ফলন ধরে গাছে। এখানকার এক একটি তরমুজ ওজনে ৭-১০ কেজি পর্যন্ত হয়। প্রতি পিস তরমুজ ৬০-৮০ টাকা হারে গত বছর বিক্রি হয়েছে। এবার আরও বেশি দামে তরমুজ বিক্রি হবে বলে আশা করছে চাষিরা।

কুঠিবাড়ি গ্রামের চাষি তৈয়ব আলী জানান, তিনি চলতি মৌসুমে ৪০ হাজার টাকা খরচ করে ৩ হাজার তরমুজ গাছের চারা লাগিয়েছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে দেড় লাখ টাকা আয় করার আশা করছেন তিনি।

লালমনিরহাটের দুর্গাপুরের তরমুজ চাষি তৈয়ব আলী জানান, ইতোমধ্যে গাছে ফলন ধরেছে। কিছুদিন পরেই শুরু হবে বেচা-কেনা।

লালমনিরহাট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিদু ভূষণ রায় জানান, বালুচরে সবজিসহ তরমুজ, মিষ্টি কুমড়া ও বাঙ্গির বাম্পার ফলন পাওয়া সম্ভব। তবে সেচ সুবিধা ব্যবস্থা করতে হবে। কৃষি অফিসাররা সব সময় তাদের পাশে আছে।