৬, জুলাই, ২০২০, সোমবার | | ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

মতলব উত্তরে এসএসসিতে পাশের হার ৮৭.৬৭, দাখিলে ৯৫.৩৩

আপডেট: মে ৭, ২০১৯

মতলব উত্তরে এসএসসিতে পাশের হার ৮৭.৬৭, দাখিলে ৯৫.৩৩

ফয়েজ আহাম্মেদ মাহিন, বিশেষ প্রতিনিধিঃএবছর কুমিল্লা বোর্ডের অধীনে মতলব উত্তর উপজেলায় এসএসসিতে পাশের গড় হার ৮৭.৬৭। দাখিলে পাশের গড় হার ৯৫.৩৩ ও ভোকেশনালে পাশের গড় হার ৮৪.২৮ ।জিপি-৫ পেয়েছে এসএসসিতে ১০৮, দাখিলে ১০ ও ভোকেশনালে ৫জন ।মতলব উত্তর উপজেলায় ৩৯টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ফলাফলে শীর্ষে হাজী মইন উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় এবং সর্বনিন্ম হাজী সিদ্দিকুর রহমান বিদ্যালয়। দাখিলে শতভাগ পাশ করেছে ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।এসএসসি ফলাফলা দেখা যায়, উপজেলার সিদ্দিকা বেগম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ৩৪ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩৩ জন, পাশের হার ৯৭.০৭। দি-কার্টর একাডেমী থেকে ২৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৮ জন, পাশের হার ৯৭, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬ জন। সুজাতপুর নেছারিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ১০৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮১ জন, পাশের হার ৭৬.৬৮, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ জন। ঝিনাইয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৬৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৫২ জন, পাশের হার ৮০। রুহিতারপাড় ডিএম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৫ জন, পাশের হার ৮৩.৩৩। অলিপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৭৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৬০ জন, পাশের হার ৭৫.৯৫। মাথাভাঙ্গা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৭৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৭৩ জন, পাশের হার ৯৩.৬৯, জিপিএ ৫ পেয়ছে ৫ জন। গাজীপুর কে.এ.এল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৭৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৬৯ জন, পাশের হার ৯৪.৫২। ইমামপুর পল্লীমঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৪৯ জন, পাশের হার ৮৪.২৪, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। জীবগাঁও জেনারেল হক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১৪ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১০৭ জন, পাশের হার ৯৩.৯৭, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। মমরুজকান্দি স্বপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৪০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১০৬ জন, পাশের হার ৭৫.৭১, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ জন। পাঁচানী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৯০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৭৬ জন, পাশের হার ৮৪, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২ জন। নাওভাঙ্গা জয়পুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৬৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৬৬ জন,পাশের হার ৯৮.৭৫, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। পাঠান বাজার আবেদীয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৯২ জন, পাশের হার ৮৫.১৯। হাজী মঈনউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৭ জন। পাশের হার ৯৮.৭৫ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। শরীফ উল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৯৯ জন, পাশের হার ৯২.৫২, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩০৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৭৫ জন, পাশের হার ৯০.১৬, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৩ জন। লুধুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে ১৪০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১২১জন, পাশের হার ৮৬.৪৩। কালিপুর উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ থেকে ২০১ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৬৫ জন, পাশের হার ৮২.০৯, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ জন। দশানী মোহনপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৪ জন, পাশের হার ৮১.৫৫, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬ জন। বাগানবাড়ী আইডিয়াল একাডেমী থেকে ১৪৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১২৯ জন, পাশের হার ৮৭.৭৬। দূর্গাপুর জনকল্যাণ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১৬ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১০২ জন, পাশের হার ৮৭.৭২। ফতেপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৯৯ জন। পাশের হার ৯২.৫২, নিশ্চিন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৮০ জন, পাশের হার ৯০, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। ইন্দুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৫০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৪৫ জন, পাশের হার ৯০। নাউরী আহমদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২৯৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৭০ জন, পাশের হার ৯০.০৪, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৭ জন। এখলাছপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৩২ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১১১ জন, পাশের হার ৮৮.০৯, জিপিত্র-৫ পেয়েছে ৮ জন । চরকাশিম আলী মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩৫ জন, পাশের হার ৯৪.৯৫। ধনাগোদা তালতলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৬ জন, পাশের হার ৮৩.৫০। ওটারচর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৮৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৪৫ জন, পাশের হার ৭৭.৫৪, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। ছেংগারচর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২৯৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৪৫ জন, পাশের হার ৮৩.০৬, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১০ জন। বদরপুর আকবর আলী খান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১২০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৮ জন, পাশের হার ৭৩.৩৩, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। মোজাদ্দেদীয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৩ জন, পাশের হার ৮৩.১৬। হাজী সিদ্দিকুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৭৩ জন, পাশের হার ৬১.৮৬। চরপাথালিয়া নূরুল হুদা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৫৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৪৯ জন, পাশের হার ৮৪.৪১, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। নন্দলালপুর সামাদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৮৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৭৭ জন, পাশের হার ৯২.৭৭ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। শিকারীকান্দি আকবরীয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৯০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৭ জন, পাশের হার ৯৬.৬৯ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ২ জন। নীলনগর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৭৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৬০ জন, পাশের হার ৭৭.৯২ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৩৬জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৩১ জন, পাশের হার ৯৬.৩২ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ২ জন।মতলব উত্তরে দাখিল পরীক্ষায়:-ফরাজীকান্দি আল ওয়াসিয়ে কামিল মাদ্রাসা থেকে ৩৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩৭ জন, পাশের হার ১০০ ভাগ। রসূলপুর হাজী চাঁন বক্স দাখিল মাদ্রাসা থেকে ২০ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২০ জন,পাশের হার শতভাগ। বদরপুর আদমিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ৩৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩২ জন, পাশের হার ৯৬.৯৬, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন। হাসিমপুর আলিম মাদ্রাসা থেকে ২৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৬ জন,পাশের হার ৯২.৮৬। লুধুয়া আহম্মদিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে ১৪ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৪ জন পাশের হার শতভাগ। আমিয়াপুর হযরত বিবি ফাতেমা (রাঃ) মহিলা মাদ্রাসা থেকে ২১ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২১ জন পাশের হার শতভাগ । সাড়ে পাঁচআনী হোসাইনিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ৪৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৪৩ জন পাশের হার শতভাগ, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ জন। নেদায়ে ইসলাম মহিলা মাদ্রাসা থেকে ৫৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩২ জন পাশের হার ৫৮.১৮ জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ জন। দশানী আল আমিন বোরহানুল দাখিল মাদ্রাসা থেকে ১৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৭ জন পাশের হার শতভাগ। রাঢ়ীকান্দি দারুচ্ছুন্নাত দাখিল মাদ্রাসা থেকে ২৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৩ জন পাশের হার ৯৮। আউলিয়াবাগ দাখিল মাদ্রাসা থেকে ২৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২৫ জন পাশের হার শতভাগ, জিপিএ পেয়েছে ২টি। লবাইর কান্দি আল আমিন আলিম মাদ্রাসা থেকে ৩৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩৪ জন পাশের হার ৯৭.৯৮।মতলব উত্তরে ভোকেশনাল পরীক্ষায়-জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৯৩ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৮৩ জন, পাশের হার ৮৯ জন ,সুজাতপুর নেছারিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ৫২ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৪৭ জন, পাশের হার ৯০.৩৯ , জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫ জন।  ,ইন্দুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৬৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৫২ জন, পাশের হার ৭৩.৪৭।মতলব উত্তরে এসএসসিতে ৪ হাজার ৫‘শ ৮৬ জনের মধ্যে পাশ করেছে ৩ হাজার ৯‘শ ৪৩ জন, দাখিলে  ৩‘শ ৪৫ জনের মধ্যে পাশ করেছে ২‘শ ৯২ জন ও ভোকেশনালে ২‘শ ১৩ জনের মধ্যে পাশ করেছে ১‘শ ৮২ জন।