৫, জুলাই, ২০২০, রোববার | | ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪১

শ্রীপুরে ১২ বছরের ধর্ষিতা শিশুর জন্ম দেয়া শিশুর নাম “অত্যাচার”!

আপডেট: মে ৮, ২০১৯

শ্রীপুরে ১২ বছরের ধর্ষিতা শিশুর জন্ম দেয়া শিশুর নাম “অত্যাচার”!

শ্রীপুর(গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে আছে টগবগে ৫মাসের একটি শিশু। পাশেই বসে আছে ১২ বছেরের তার মা আরেক শিশু। কেউ যেন কারো কথা বুঝতে পারেনা। আর বুঝার মতো বয়সই তো হয়নি তাদের। যে বয়সে মায়ের কোলে থাকার কথা সে শিশু বয়সে তার কোলে নিজের শিশু। এমনই এক দৃশ্য দেখা গেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের মহিলা ওয়ার্ডের শিশু বিছানায়।

ধর্ষিতা শিশুর স্বজনদের বক্তব্য ও থানায় দেয়া অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত ২ বছর পূর্বে নাবালক শিশু (১২) কে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষন করে। পরবর্তী সময় ওই শিশু অসুস্থ্য হইয়া পড়লে ডাক্তারের নিকট নিয়ে গেলে জানা যায় যে, সে অন্ত:স্বত্ত্বা। তখন শিশুকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে সে বলে যে, জহিরুল তাকে জোর পূর্বক জঙ্গলে নিয়ে খুন জখমের হুমকি দিয়ে ধর্ষন করে। পরবর্তী সময় উক্ত শিশুর গর্ভে  ধর্ষকের ঔরষে একটি মেয়ে জন্মগ্রহন করে যাহার নাম- অত্যাচার (৫ মাস) রাখা হয়। পরে ঘটনার বিষয়ে অবগত হয়ে ওই শিশুর পিতা বাদী হইয়া শ্রীপুর থানায় একটি মামলা যাহার নং- ৫৫, তাং ২৩/০৯/২০১৮ইং ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ৯(১) রুজু হয়। এতে আসামী গ্রেফতার হয় এবং পরবর্তী সময় বিজ্ঞ আদালত হতে জামিনে বাড়ীতে আসে। বাড়ীতে আসার পর হতে অন্যান্য সকল আসামীদের কুপরামর্শে পুনরায় ওই শিশুসহ পরিবারকে বিভিন্ন ভাবে অত্যাচার নির্যাতন করিয়া আসতে থাকে এবং ইতি পুর্বে শিশুকে মারপিট সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়া আসছে।

৭ মে সকাল ৮টায় উল্লেখিত আসামীর কুপরামর্শে ও প্ররোচনায় নেত্রকোনা জেলার সদর থানার গাজার কান্দি গ্রামের হাবুল মিয়ার ছেলে সিজান (১৯) বর্তমানে গিলারচালা মান্নান হাজী ওরফে মান্না এর বাড়ীর ভাড়াটিয়াকে দিয়া আমাদের অনুপস্থিতির সুযোগে পূর্ব পার্শ্বের রুমে খাটের উপর জোর পূর্বক ওই শিশুকে ধর্ষন করে। তখন তার ডাক চিৎকারে আশপাশ হতে লোকজন আসলে  শিশুকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি, লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা জখম করে। এসময় নাতনীকে (অত্যাচার ৫ মাস) খাটের উপর হতে তুলে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুড়ে মারে বলেও জানান তিনি। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসাধীন ।

শিশুটির এক আতœীয় জড়িনা খাতুন জানান,  বিষয়টি সংক্রান্তে স্থানীয় কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আমাকে ঘটনার বিষয়ে মিমাংসার জন্য ৫ লক্ষ টাকা অফার করে। এছাড়াও রাজি না হলে এ ঘটনা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার কথা বলেন তিনি।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল জানান, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এলাকাবাসী ওই শিশুকে আরেকটি ছেলের সাথে এক ঘরে খারাপ কাজ করেছে জানতে পারি। আমি বিষয়টি নিয়ে কিছু বুঝার আগেই ওই শিশুকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

 শ্রীপুর থানার কর্তব্যরত অফিসার এ এস আই আনোয়ার হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শ্রীপুরে ১২ বছরের ধর্ষিতা শিশুর জন্ম দেয়া শিশুর নাম “অত্যাচার”!

শ্রীপুর(গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে আছে টগবগে ৫মাসের একটি শিশু। পাশেই বসে আছে ১২ বছেরের তার মা আরেক শিশু। কেউ যেন কারো কথা বুঝতে পারেনা। আর বুঝার মতো বয়সই তো হয়নি তাদের। যে বয়সে মায়ের কোলে থাকার কথা সে শিশু বয়সে তার কোলে নিজের শিশু। এমনই এক দৃশ্য দেখা গেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের মহিলা ওয়ার্ডের শিশু বিছানায়।

ধর্ষিতা শিশুর স্বজনদের বক্তব্য ও থানায় দেয়া অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত ২ বছর পূর্বে নাবালক শিশু (১২) কে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষন করে। পরবর্তী সময় ওই শিশু অসুস্থ্য হইয়া পড়লে ডাক্তারের নিকট নিয়ে গেলে জানা যায় যে, সে অন্ত:স্বত্ত্বা। তখন শিশুকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে সে বলে যে, জহিরুল তাকে জোর পূর্বক জঙ্গলে নিয়ে খুন জখমের হুমকি দিয়ে ধর্ষন করে। পরবর্তী সময় উক্ত শিশুর গর্ভে  ধর্ষকের ঔরষে একটি মেয়ে জন্মগ্রহন করে যাহার নাম- অত্যাচার (৫ মাস) রাখা হয়। পরে ঘটনার বিষয়ে অবগত হয়ে ওই শিশুর পিতা বাদী হইয়া শ্রীপুর থানায় একটি মামলা যাহার নং- ৫৫, তাং ২৩/০৯/২০১৮ইং ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ৯(১) রুজু হয়। এতে আসামী গ্রেফতার হয় এবং পরবর্তী সময় বিজ্ঞ আদালত হতে জামিনে বাড়ীতে আসে। বাড়ীতে আসার পর হতে অন্যান্য সকল আসামীদের কুপরামর্শে পুনরায় ওই শিশুসহ পরিবারকে বিভিন্ন ভাবে অত্যাচার নির্যাতন করিয়া আসতে থাকে এবং ইতি পুর্বে শিশুকে মারপিট সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়া আসছে।

৭ মে সকাল ৮টায় উল্লেখিত আসামীর কুপরামর্শে ও প্ররোচনায় নেত্রকোনা জেলার সদর থানার গাজার কান্দি গ্রামের হাবুল মিয়ার ছেলে সিজান (১৯) বর্তমানে গিলারচালা মান্নান হাজী ওরফে মান্না এর বাড়ীর ভাড়াটিয়াকে দিয়া আমাদের অনুপস্থিতির সুযোগে পূর্ব পার্শ্বের রুমে খাটের উপর জোর পূর্বক ওই শিশুকে ধর্ষন করে। তখন তার ডাক চিৎকারে আশপাশ হতে লোকজন আসলে  শিশুকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি, লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা জখম করে। এসময় নাতনীকে (অত্যাচার ৫ মাস) খাটের উপর হতে তুলে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুড়ে মারে বলেও জানান তিনি। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসাধীন ।

শিশুটির এক আতœীয় জড়িনা খাতুন জানান,  বিষয়টি সংক্রান্তে স্থানীয় কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আমাকে ঘটনার বিষয়ে মিমাংসার জন্য ৫ লক্ষ টাকা অফার করে। এছাড়াও রাজি না হলে এ ঘটনা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার কথা বলেন তিনি।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল জানান, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এলাকাবাসী ওই শিশুকে আরেকটি ছেলের সাথে এক ঘরে খারাপ কাজ করেছে জানতে পারি। আমি বিষয়টি নিয়ে কিছু বুঝার আগেই ওই শিশুকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

 শ্রীপুর থানার কর্তব্যরত অফিসার এ এস আই আনোয়ার হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।