২২, এপ্রিল, ২০২১, বৃহস্পতিবার | | ১০ রমজান ১৪৪২

এরশাদের কবর দেয়ার সিদ্ধান্ত হবে ১৬ জুলাই

আপডেট: জুলাই ১৫, ২০১৯

এরশাদের কবর দেয়ার সিদ্ধান্ত হবে ১৬ জুলাই

মো:আতিকুর রহমান,উওরা,প্রতিনিধি:

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে কোথায় কবরদেয়া হবে- এ বিষয়ে আগামী ১৬ ‍জুলাইসিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানিয়েছেনদলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি।দলীয় নেতা-কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে শোক কর্মসূচি ঘোষণাকালে তিনি এ কথা জানান। মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শেষ ইচ্ছে অনুযায়ী এখন পর্যন্তসামরিক কবরস্থানে তাকে কবর দেয়ারসিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। নেতা-কর্মীরাযদি মনে করে তার কবর পাবলিকপ্লেসে উন্মুক্ত জায়গায় হোক, এবিষয়ে আমরা দলের শীর্ষ পর্যায়েরনেতারা আলোচনা করব। পরিবারসহ সবাইবসে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। ১৬জুলাই আমরা আপনাদের জানিয়ে দেব।এ সময় দলের নেতা-কর্মীরা দফায়দফায় এরশাদের কবর সামরিক কবরস্থানেরপরিবর্তে ঢাকার যেকোনো উন্মুক্তস্থানে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভকরছিলেন।মসিউর রহমান রাঙ্গা নেতা-কর্মীদেরশান্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনারা শান্ত থাকুন নেতা-কর্মীদের আবেগের বিষয়টি আমরা বুঝি। নেতা- কর্মীদের ইচ্ছে অনুযায়ী এরশাদের কবর ও দাফন সবকিছুই হবে।এবিষয়ে আমাদের দলের শীর্ষ নেতাও তার পরিবার ঠিক করবে। কবর দিতে কোথায় বলেছিলেন এইচ এম এরশাদ- এমন প্রশ্নের জবাবে রাঙ্গাবলেন, ‘উনি চেয়েছিলেন বনানীসামরিক কবরস্থানে। যদি সেখানে না হয়তাহলে পাবলিক প্লেসে উন্মুক্তস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।’কবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে- জানতেচাইলে জাপা মহাসচিব বলেন, ১৬ জুলাইপর্যন্ত আপনাদের অপেক্ষা করতেহবে। ওইদিন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়েদেব।এ সময় দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আজম খান, আতিকুর রহমান, লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, এটিইউ এম তাজ রহমান, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল আলম রুবেল, মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক,বেলাল হোসেন, মাসুদুর রহমান মাসুদ,সুমন আশরাফ, মিজানুর রহমান মিরুসহ দলের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।