৮, ডিসেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

ভূমি সেবায় আমরা কোন অভিযোগ কোন অনিয়ম শুনতে চাই না : এডিসি মোহাম্মদ জামাল হোসেন

আপডেট: জুলাই ২৬, ২০১৯

ভূমি সেবায় আমরা কোন অভিযোগ কোন অনিয়ম শুনতে চাই না : এডিসি মোহাম্মদ জামাল হোসেন

হোসেনফয়েজ আহাম্মেদ, বিশেষ প্রতিনিধি ::

চাঁদপুরের মতলব উত্তরে ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষ্যে শ্রেষ্ঠদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে আয়োজিত এ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ জামাল হোসেন। বক্তব্যে তহসিলদারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, জনগণকে হয়রানিমুক্ত দ্রুত সেবা দিতে হবে। ভূমি সেবায় আমরা কোন অভিযোগ কোন অনিয়ম কিছু শুনতে চাই না। উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে দ্রুত গতিতে মানসম্মত সেবা দিতে হবে। সরকারের ডিজিটাল দেশ গড়ার অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে সকল সেবা-ই প্রায় ডিজিটাইজড্ হয়ে গেছে।অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ জামাল হোসেন আরও বলেন, রাজস্ব আয়ের মধ্যে অত্যতম খাত হলো ভূমি। সরকার ভূমি সেবাকে সম্পূর্ণ অটোমেটিক পদ্ধতিতে নিয়ে আসছে। তাই এই সেবা দ্রুত গতিতে দেওয়া নিশ্চিত করতে হবে। যারাই ভূমি অফিসে আসবে তাদের সাথে ভালভাবে বুজিয়ে নিদির্ষ্ট ফি এর মাধ্যমে সেবা দিতে হবে। তিনি বলেন, সরকারি কর্মকর্তা ও জনগনের মাঝে কোনরকম দূরত্ব থাকবে না। উভয়কেই মানসম্মত সেবার চিন্তা করতে হবে। তিনি সকল ভূমি কর্মকর্তাদেরকে সেবা প্রদানে আরো সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান এবং আজকে যারা শ্রেষ্ঠ হয়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানান ও আগামীতে আরো বেশি ভাল করার অনুপ্রেরণা দেন।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে ও সার্ভেয়ার বাকীরুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) শুভাশিষ ঘোষ। আরো বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক শামছুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক জাকির হোসেন বাদশা, তহসিলদারদের পক্ষে মো. হুমায়ুন কবির প্রমুখ। এসময় উপজেলা উপজেলা ভূমি অফিস সকল ইউনিয়ন ও পৌরসভার সকল কর্মকর্তা/কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।সভায় ৪ জন সেবা দাতা ও ১ জন সেবা গ্রহীতাকে সম্মাননা ক্রেস্ট দিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। ৩ লাখ ২১ হাজার ৩০০ টাকা সর্বোচ্চ করদাতা মো. শহিদুল্লাহকে ক্রেস্ট দেয়া হয়। ১৬ লাখ ১৫ হাজার ৫২০ টাকা সর্বোচ্চ কর আদায়কারী ছেঙ্গারচর পৌরসভা ভূমি কর্মকর্তা মো. শাহজালাল পাঠান, ৬ লাখ ৮৪ হাজার ৮৮ টাকা আদায়কারী ২য় সর্বোচ্চ কর আদায়কারী যৌথভাবে আমিরাবাদ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মো. কারুজ্জামান ও নূরুল আমিন চৌধুরী, প্রথম শতভাগ কর আদায়কারী কলাকান্দা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মো. শাহআলম ও শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দূর্গাপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসার মো. হুমায়ুন কবির। তাদের সকলকে ক্রেস্ট দিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।