৬, ডিসেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ৮ রবিউস সানি ১৪৪১

হাতীবান্ধায় উপজেলা আ'লীগের সভাপতি প্রার্থীর- সংবাদ সম্মেলন চাঁদপুরে ক্রীড়া ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে বিশাল ঐতিহ্য রয়েছে!শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডাঃ দীপু মনি এমপি বিএনপি হত্যা আর ধ্বংশের রাজনীতি করে, আওয়ামিলীগ কল্যান ও উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসী- হাসানাত আবদুল্লাহ তাড়াইলে পুটপাতের দোকানগুলোতে শীতবস্ত্র বেচাকনার ধুুম লেগেছে নতুন নেতৃত্বে ইবি রোভার স্কাউট গ্রুপ শ্রীপুরে বালুর স্তুপের নিচে এক শিশুর মৃত লাশ উদ্ধার ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সাদেক কুরাইশী ও দীপক টঙ্গী সিরাজ উদ্দিন সরকার বিদ্যানিকেতন এন্ড কলেজ ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় ৪৮জন বৃত্তি পেয়েছে

এবারের জাতীয় নির্বাচনে নতুন তরুণ ভোটাররা নিরব কেন?

আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০১৮

এবারের জাতীয় নির্বাচনে নতুন তরুণ ভোটাররা নিরব কেন?

এ,কে,আজাদ,(দিনাজপুর,খানসামা প্রতিনিধি): শুধু দিনাজপুর, খানসামা উপজেলায় নয় ,৫৬,৯৭৭ বর্গমাইল জুরে এক খন্ড ভূমি বাংলাদেশ নামে যে দেশটি আছে, এদেশে প্রায় ১১ কোটি তরুণ ভোটার রয়েছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান  ব্যুরোর সর্বশেষ হিসেবে বর্তমান এই দেশটির বেকারের সংখ্যা -২৭ লাখ। প্রতি বছর যোগ হচ্ছে আর অনেকে।

এই শিক্ষিত বেকারত্বের বোঝা নিয়ে দিন কাটাচ্ছে অসহনীয় অবহেলায় পারিবারিক -সামাজিকভাবে অপমানিত হয় এই বেকার তরুণেরা। কিন্তুু আমাদের এই দেশটিতে যে এতো তরুণ বেকার রয়েছে , দেখেও না দেখার ভান করে থাকে দেশটির প্রধান পরিচালকরা । কোটা সংস্করণের জন্য যে আন্দোলন হচ্ছে বা হয়ে গেলো,  জেল,খুন ধর্ষন, মা-বাবার বুক ফাটা কান্নাকাটি, কেউ তাদের দিকে নজর দিলোনা।
তাহলে তারা কি এই বেকারত্বেরদায় মাথায় নিয়ে খুনি, চাঁদাবাজি, ছিনতাই, রাহাজানি, সর্বশেষ জংগি দলে প্রবেশ করবে? তাহলে এদেরকে খুনি,চাঁদাবাজি, ছিনতাইকারী  বানালো কারা।
এই সন্ত্রাসী দায়ভার কে নিবে? ( প্রশ্ন রাখলাম পাঠকদের জন্য)  – এই রাজনীতির মাঠে, তরুণ বেকারদের দিয়ে প্রতিটি দেশ  পরিচালকরা  ক্ষমতায় বসে।
এবারে জাতীয় নির্বাচন রাজনৈতিক মাঠে  নতুন তরুণ ভোটার দের ভাবনা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে এগিয়ে নিয়ে জাওয়া ।  তাই এই বাংলাদেশে যে সরকার বেকারত্বের অভিশাপ নামে  ভাইরাস কে দুর করতে পারবে সেই সরকার কেই  নির্বাচিত করবে তারা।  আগের মতো আর উৎসবমুখোর রাজনৈতিক মাঠ নেই,  নেই কোন মিছিল, ভালোবাসাও নেই আগের মতো, তবে দেশে নির্বাচন হচ্ছে ঠিকই,
আতংক বেরে গেছে অনেক।
 গুম খুনের ইতিহাস সবাই জানে , কিন্তুু কেউ মুখ খুলতে চায়না , বললেই নাকি জেলে যেতে হবে। এই তো সপ্তাহ দুয়েক আগে আমাদের উপজেলায়  আতংক মানুষের মুখে মুখে কেউ রাজনৈতিক কথা বললেই জেল। আমাদের এলাকার কয়েক জনকে পুলিশ ধরেছিলো বটে।
মানুষ জেল আতংকিত হওয়ার পরে  আমাদের খানসামা উপজেলার চেয়ারম্যান শাহ শহীদুজ্জামান, এলাকার মানুষ দের আসস্থ করে বলেন  সন্ত্রাসী না হলে কেউ পুলিশকে ভয় করবেননা এবং বাড়ি ঘর থেকে পালিয়ে জাবেন না । পুলিশ যদি সন্দেহ করে কাউকে ধরে সাথে সাথে আমাকে জানাবেন তাকে ছাড়ানোর ব্যবস্থার আমার।
কিন্তুু নতুন ভোটার তরুণরা নিরব কেউ আর রাজনীতির মাঠে নেই। বেকারত্বের অভিশাপ তাদের কে নিরব করে দিয়েছে।
 বর্তমানে নতুন তরুণ ভোটারা চুপ করে খেলা দেখতেছে,  সময় হলে তাদের মনোনিত দেশের উন্নয়নের  কান্ডারী  কেই বেছে বেছে ভোট দিয়ে জয় যুক্ত করবেন ।
একান্ত মতামত
খানসামা প্রতিনিধি।

আরও পড়ুন