২৩, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১

লঞ্চ টার্মিনালের টিকেট এখন ১০ টাকা!

আপডেট: অক্টোবর ১, ২০১৯

লঞ্চ টার্মিনালের টিকেট এখন ১০ টাকা!

সামিউল্লাহ,কোতয়ালী (ঢাকা) প্রতিনিধিঃসারাদেশে লঞ্চ টার্মিনালগুলোতে ঢোকার টিকেটের দাম দ্বিগুণ হয়েছে। এখন প্রতিবার ঢুকতে প্রতিজনের ৫ টাকার টিকেট কাটতে হয়। ১ অক্টোবর অর্থাৎ মঙ্গলবার থেকে প্রতি টিকেটে নেয়া হবে ১০ টাকা।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন সোমবার এ তথ্য জানিয়ে বলেন, যেকোনো টোল বা শুল্ক, তা সরকারের অনুমোদনক্রমে চালু করা হয়। এ শুল্ক সরকারের অর্থাৎ অর্থ মন্ত্রণালয় অনুমোদন করার পরে ১ অক্টোবর থেকে এটা চালু হবে। 

নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, যাত্রীসেবা বাড়ানোর লক্ষ্যে অনেকগুলো সভা করে চুলচেরা বিশ্লেষণের পর টিকেটের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

১০ টাকার মধ্যে দুই টাকা যাত্রী কল্যাণ তহবিলে জমা হবে এবং বাকি টাকা টার্মিনাল রক্ষণাবেক্ষণসহ অন্যান্য সেবামূলক কাজে ব্যয় করা হবে।

নৌ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, সারাদেশে ৩২টি নদীবন্দর থাকলেও ২৮টি নদী বন্দর চালু রয়েছে।

এদিকে, নতুন ফি অনুযায়ী ফেরিঘাটে গাড়ি প্রবেশের ফি বাড়বে ২০ থেকে ৩৩ শতাংশ। ফেরি টার্মিনালে বাস, ট্রাক, মিনিট্রাক, কাভার্ডভ্যান, ট্রেলার ও ট্যাঙ্ক-লরি প্রবেশে বিআইডব্লিউটিএর ফি ৬০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭৫ টাকা; মাইক্রোবাস, পিকআপ ভ্যান ও স্টেশন ওয়াগন প্রবেশে ৩০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪০ টাকা এবং টেম্পোসহ তিন চাকার যানবাহনে ২৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা করা হয়েছে।

এছাড়া, দেশের সব নদীবন্দরে বিআইডব্লিউটিএর সড়ক ব্যবহারের ফিও বেড়েছে। বন্দর এলাকায় বোঝাই বাস-ট্রাক প্রবেশে ৫০ থেকে বাড়িয়ে ৭৫ টাকা করা হয়েছে।

নতুন ফি অনুযায়ী নৌযান মালিকদের ওপর বেশি ফি আরোপ হয়েছে। নৌপথ সংরক্ষণ যেমন ড্রেজিং, সিগন্যাল বাতি স্থাপনসহ অন্যান্য কার্যক্রম পরিচালনায় নৌযান থেকে কঞ্জারভেন্সি চার্জ আদায় করে বিআইডব্লিউটিএ। এ খাতের ফি দিতে হয় নৌযান মালিকদের। কঞ্জারভেন্সি ফি লঞ্চ ও জাহাজ থেকে যাত্রীপ্রতি বছরে ১০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১১৫ টাকা, স্পিডবোটে যাত্রীপ্রতি ৪১৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা এবং সব পণ্যবাহী জাহাজ ও ফিশিং ট্রলার থেকে প্রতি গ্রস টনে ৪৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ টাকা করা হয়েছে।

এছাড়া, বিদেশি পতাকাবাহী মালবাহী জাহাজের ফি ১৭২ টাকা ৫০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ২১০ টাকা হয়েছে। তবে নৌ প্রটোকলের অধীনে থাকা জাহাজের আওতায় আসবে না। নৌপথে জাহাজ সঠিক পথে চলার দিকনির্দেশনা দেয় বিআইডব্লিউটিএর পাইলটরা। প্রতি ৮ ঘণ্টার (প্রতি বিট) জন্য পাইলটেজ ফি ১০০ টাকা বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করা হয়েছে।