১২, ডিসেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

ঝালকাঠিতে হানিফ বাংলাদেশী’র লালকার্ড প্রদর্শন

আপডেট: অক্টোবর ১, ২০১৯

ঝালকাঠিতে হানিফ বাংলাদেশী’র লালকার্ড প্রদর্শন


ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ সমাজ রাষ্ট্র সর্বত্র ঘুষ-দুর্নীতি ও নৈতিক অবক্ষয়ের প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের দাবিতে হানিফ বাংলাদেশি দেশের ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি শুরু করেছেন। 
তারই সাথে ঘুষখোর, দূর্নীতিবাজদের উদ্দেশ্যে প্রতিকী লালকার্ড প্রদর্শন কর্মসূচী পালন করছেন। পাশাপাশি তিনি লিফলেটও বিতরণ করছেন জন সচেতনতা তৈরি করতে। গত দুই সেপ্টেম্বর সিলেট জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিয়ে তার সফর শুরু করেন। আজ মঙ্গলবার সকালে তিনি ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক কর্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান শেষে লালকার্ড প্রদর্শন কর্মসূচী পালন করেন। এ সময় তার সাথে অনন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন মুহাম্মদ খালেদ সাইফুল্লাহ, সাইফুল্লাহ প্রমুখ। 
মোঃ হানিফ নোয়াখালী সদর উপজেলার নিয়াজপুর ইউনিয়নের জাহানাবাদ গ্রামের আবদুল মান্নান রেনু মিয়ার একমাত্র ছেলে। দেশের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে কাজ করায় বন্ধুরা তাকে হানিফ বাংলাদেশি’ বলে ডাকেন। বর্তমানে তিনি এ নামেই সর্বত্র পরিচিত। হানিফ বাংলাদেশি জানান, স্বাধীনতার পর যে রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় এসেছে তারাই ঘুষ, দুর্নীতি ও নৈতিক অবক্ষয়ে নিমজ্জিত ছিল। যা আজ চরম আকার ধারণ করেছে। সমাজ, রাষ্ট্র সর্বত্রই ঘুষ, দুর্নীতি, সামাজিক, মানবিক, পারিবারিক মূল্যবোধের অবক্ষয় চলছে। 
তিনি বলেন, গুজব ছড়িয়ে নিরীহ মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে। ছোট মেয়েদের ধর্ষণের পর নির্মমভাবে হত্যা করা হচ্ছে। তুচ্ছ ঘটনায় একে অন্যকে কুপিয়ে হত্যা করছে। নারী-শিশু নির্যাতন মহামারী আকার ধারণ করেছে। পরস্পর দোষারোপ ও প্রতিহিংসার রাজনীতি অবক্ষয়কে আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে
 হানিফ বাংলাদেশি জানান, চলমান দুর্বৃত্তায়িত রাজনীতির অবসান হলে এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হলে, প্রতিটি নাগরিক তার দায়িত্ব-কর্তব্য সম্পর্কে সচেতন হলে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলে অবক্ষয় নির্মূল সম্ভব। 
তিনি আরো জানান, জেলা প্রশাসকরা একটা জেলার সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী। তারা সুষ্ঠুভাবে দল-মত নির্বিশেষে আইনের শাসন প্রয়োগ করলে সমাজ দুর্নীতিমুক্ত হবে। তাহলে মানুষের মাঝে নৈতিক মূল্যবোধ জাগ্রত করা সম্ভব। তাই তিনি দেশের ৬৪ জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এতে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন।
 এর আগেও হানিফ বাংলাদেশি ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে গত ১৪ মার্চ থেকে ১২ এপ্রিল পর্যন্ত টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত প্রায় ১০০৪ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে একক পদযাত্রা করেন এবং গত ৬ মে নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগের দাবিতে পঁচা আপেল নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। এ ছাড়াও ভোটাধিকারের দাবিতে সংসদ ভবন প্রদক্ষিণ কর্মসূচী নিয়ে  অবস্থান নিয়েছিলেন হানিফ বাংলাদেশি।