২৩, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১

কয়েকদিনের বৃষ্টিতে, আদিতমারীতে বৃদ্ধি বিভিন্ন ভোগ্যপণ্যের দাম

আপডেট: অক্টোবর ১, ২০১৯

কয়েকদিনের বৃষ্টিতে, আদিতমারীতে বৃদ্ধি  বিভিন্ন ভোগ্যপণ্যের দাম

ঋতুর পালা বদল ত্রুমে,চলতি  ঋতুতে শুরু হয়েছে,মেঘলা আকাশের বৃষ্টি। গত
বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া,কয়েক
দিনের বৃষ্টিতে,আদিতমারীর হাট-বাজারে, বৃদ্ধি পেয়েছে বিভিন্ন ভোগ্যপণ্যের দাম।
কয়েকদিনের ব্যবধানে, গত সপ্তাহের তুলনায়, চলতি সপ্তাহে বাজারে আসা শীতের আগাম,
সবজি সহ,অনন্য ভোগ্যপণ্য গুলোতে প্রতি
কেজিতে বৃদ্ধি ১০-২০টাকা।উপজেলার হাট-বাজারের মধ্যে সিমান্ত নিকটবর্তী বাজার,দুলালী, শটিবাড়ী, সাংকারচওড়া
সহ,আরও কয়েকটি বাজারে, বেগুন মুলা
আলু পটল,কপি পেয়াজ মরিচ রসুন শাক
সবজি সহ,মাছ মাংসে।গতকাল বিকেল
বাজারে,ক্রেতাসাধারণ জানায়,গত সপ্তাহে
প্রতি কেজি বেগুন ছিল,২০-২৫টাকা,বর্তমান চলতি বাজারে বৃদ্ধিতে ক্রয় করতে হচ্ছে,৩০-৩৫টাকায়।
বাজারে আসা নতুন সবজি মুলা,শুরুতেই
বিক্রি হতো,২৫-৩০টাকায়,প্রতি কেজিতে ১০টাকা বৃদ্ধিতে বিক্রি হচ্ছে ৪০টাকাতে।
এছাড়া আলু পটল কপিতে একই ভাবে বৃদ্ধি রয়েছে,একেবারেই উর্ধ্বগতিতে বৃদ্ধি
রয়েছে,পেয়াজ রসুনে।মাত্র একদিনের ব্যবধানে প্রতি কেজিতে বৃদ্ধি হয়েছে ৩০টাকা ,বর্তমান চলতি বাজারে বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ,প্রতি কেজি পেয়াজ ১০০টাকাতে।তবে মাছ মাংসে
স্বাভাবিক হারে,গত সপ্তাহের তুলনায় প্রতি
কেজিতে বৃদ্ধি ১৫-২০টাকা,এক মাসের
তুলনায় বর্তমান বাজারে অতিরিক্ত হারে
বৃদ্ধি পেয়েছে বয়লার মুরগীর ডিমে প্রতি
ডজনে ২৪টাকা পর্যন্ত। গতমাসের শেষ
সপ্তাহে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হতো ৯৬টাকায়,মাসের ২৭সেপ্টেম্বর থেকে প্রতি
ডজন ডিমে ২৪টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ১২০টাকা পর্যন্ত।উক্ত বাজারের
কাঁচামাল ব্যবসায়ীরা জানান,বৃষ্টিতে
কৃষকের চাষকৃত ,সবজির ক্ষেত নষ্ট হওয়ায়,চাহিদানুযায়ি বাজারে,সরবরাহ
তেমন না থাকায়,বৃদ্ধি পেয়েছে ভোগ্যপণ্যের মধ্যে,কাচামালে।বাজারে
পেয়াজের সরবরাহ না,থাকায় দিন দিন
বৃদ্ধি হচ্ছে পেয়াজের দাম বলে জানান
ব্যবসায়ীরা।বিশেষ করে,পেয়াজের সাথে
পাল্লা দিয়ে,লাগামহীন ঘোড়ার ন্যায়,দ্বিগুণ
হারে বৃদ্ধি পেয়েছে রসুনে,গত দুই ব্যবধানে
প্রতি কেজি বৃদ্ধি,৮০টাকা।দুই সপ্তাহ আগে
প্রতি কেজি বিক্রি হতো,৮০টাকা পর্যন্ত,
একেবারেই উর্ধ্বগতিতে বৃদ্ধি পেয়ে,বর্তমান
বাজারে,বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি রসুন,১৬০টাকাতে।সরেজমিনে ,বিভিন্ন
ভোগ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি হওয়ায়,বাজারে
দিশেহারা ক্রেতা,এমনকি পাশা-পাশি কমে
যাচ্ছে ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতা অধিকাংশ হারে