৮, ডিসেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

হরিণাকুণ্ডুতে গান্ডারি আঁখ চাষে বাম্পার ফলন!

আপডেট: অক্টোবর ১২, ২০১৯

হরিণাকুণ্ডুতে গান্ডারি আঁখ চাষে বাম্পার ফলন!

  হরিণাকুন্ডু প্রতিনিধি :
 ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে গ্যন্ডারী আঁখ চাষে বাম্পার ফলন হয়েছে।এ বছর উপজেলার পারদখলপুর,পার্বতীপুর-আমেরচারা, হরিশপুর, চিথলিয়াপাড়া সহ বেশ কিছু গ্রামে চাষিরা আঁখ চাষে সফলতা লাভ করেছে।এ ব্যাপারে পারদখলপুর গ্রামের আঁখ চাষি বাগামোল্লা বলেন,কৃষি অফিসের সকল সহযোগিতায় আমি ধানের জমিতে আঁখ চাষ করে ব্যাপক হারে ইতিবাচক ফলন পেয়েছি। মাত্র ১০শতক জমিতে আঁখ চাষ করে প্রায় ১লক্ষ টাকার আঁখ বিক্রয় করেছি। যেখানে ধান চাষ করলে খরচ বাদে আমার কোন লাভ হতো না।কৃষক হায়াত আলী লস্কার বলেন,আমি বাগামুল্লার আঁখ চাষ দেখে নিজেও চাষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামীতে আমি ও ৫ কাঠা জমিতে আঁখ চাষ করব।আমের চারার আমিরুল ইসলাম বলেন, প্রতিবিঘা জমিতে আঁখচাষে খরচ হয়,আশি থেকে নব্বই হাজার টাকা। যা বিক্রয় করলে তিন লক্ষ টাকার বেশি হবে, যেখানে খরচ বাদে কৃষকের ২লক্ষ টাকার কাছাকাছি লাভ হবে। আঁখ চাষের ঝুকির কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন,আঁখ চাষের ঝুকি বলতে প্রথমত হলো আঁখে পোকা ধরা,আর আঁখ পড়ে যাওয়া। ভালকরে তাঁর ও বাঁশের কোলাচ দিলে পড়ার সম্ভাবনা কম থাকলেও পোকা ঠেকানো কঠিন।এব্যাপারে আঁখ বড় হওয়ার সাথে সাথে খেয়াল রাখতে হবে যাতে জমিতে পঁচাপাতা না পড়ে।
কৃষি কর্মকর্তা আরশেদ আলী চৌধুরী বলেন, আমরা কৃষকের সবসময় সকলপ্রকার স্বাভিক সহজােগিতা করেছি যার পরিপ্রেক্ষিতে এবছর উপজেলার পারদখলপুর,আমেরচারা,চিথলিয়াপাড়া সহ কয়েকটি গ্রামে পরিক্ষা ম‚লক আঁখচাষে বাম্পার ফলন হয়েছে। আশাকরি আগামীতে আরো অধিক জমিতে বেশিকরে আঁখচাষ হবে ।