১৫, ডিসেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

মিডিয়ায় নালিশ করায় ক্ষুব্ধ পাপন

আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০১৯

মিডিয়ায় নালিশ করায় ক্ষুব্ধ পাপন

কোতয়ালী (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ

গত সোমবার মিরপুর স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে সাকিবের নেতৃত্বে জড়ো হয়েছে ক্রিকেটাররা। সম্মানী, ঘরোয়া ক্রিকেটে ম্যাচ ফি  এবং সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির জন্য ১১ দফা দাবি উত্থাপন করেছেন ক্রিকেটাররা। 

এই দাবিসমূহ পূরণ না হলে চলমান জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) এবং আসন্ন ভারত সফরকে সামনে রেখে অনুশীলন বর্জন করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সাকিব, তামিমরা। ডাক দিয়েছেন ব্যতিক্রমধর্মী ধর্মঘটের।  

ক্রিকেটারদের এই দাবিসমূহ মিডিয়ায় প্রকাশিত হলে নড়ে-চড়ে বসেছে বিসিবি। মঙ্গলবার জরুরি সভায় বসে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার কৌশল বের করেছে।

তবে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে সভায় বসে বেলা ৩টা ১০ মিনিটে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিদ্যমান সংকটের কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি বিসিবি সভাপতির কথায়। দাবি-দাওয়াগুলো বিসিবিতে উপস্থাপন না করে মিডিয়ায় নালিশ আকারে উন্থাপন করায় তেলে-বেগুনে জ্বলে উঠেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি-‌ ‘ওরা দাবির কথা আমাদের না বলে মিডিয়াতে বলল। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে গেল। আইসিসি, এসিসি সবাই আমাকে ফোন করছে। ওরা (ক্রিকেটাররা) প্রথমে প্রেস কনফারেন্স করল। দাবি তুলে ধরল। আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা না করেই এটা করল ওরা।’

‘এমন এক সময়ে, যখন কিনা জাতীয় দলের ভারত সফর সামনে। ক্রিকেটের উন্নয়নের জন্য বলছে কিন্তু ওরা আমাদের কাছে আসে নাই। ওরা আমাদের ফোনও ধরে না। এগুলো সব পূর্বপরিকল্পিত। ওরা দেশের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে।’

‘এখানে যেসব দাবি-দাওয়া আছে, এখানে এমন কিছু নেই যে আমাদের বললে আমরা মানব না। তাহলে বলল না কেন? আইসিসি, এসিসি, বিভিন্ন বোর্ড সবাই আমাকে ফোন করছে। ওরা ভাবছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে গণ্ডগোল বেঁধে গেছে। ওরা (ক্রিকেটাররা) এটাই চেয়েছিল। ওরা সফল হয়েছে। প্রথমে প্রেস কনফারেন্স করল। ওরা দাবি তুলে ধরল। আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা না করেই এটা করল ওরা। এমন এক সময়ে, যখন কিনা জাতীয় দলের ভারত সফর সামনে। ক্রিকেটের উন্নয়নের জন্য বলছে কিন্তু ওরা আমাদের কাছে আসে নাই। ওরা আমাদের ফোনও ধরে না।’

মিডিয়ার সামনে এসব দাবি-দাওয়া উত্থাপন করাকে পূর্ব পরিকল্পিত মনে করছেন বিসিবি সভাপতি- ‘খেলা বন্ধ কেন করবে? ওরা যদি না খেলতে চায় না খেলবে। এসব আসলে পূর্বপরিকল্পিত। আমাদের বিপদে ফেলার জন্য এসব করা হচ্ছে। এটা দেশের বিরুদ্ধে বড় ষড়যন্ত্র। দেশের ক্রিকেটকে নষ্ট করার একটা চেষ্টা চলছে। ভারত সফর বাদ দিলে আইসিসি’র কাছ থেকে চাপ আসবে। সবই পূর্বপরিকল্পিত। এসব করে দেশের ক্রিকেটের কী উন্নতি হলো এটা বুঝতে পারলাম না। ওদের জন্য আমরা সব করেছি। অনেক টাকা খরচ করেছি। কিন্তু দাবি জানানোর আগে একবার জানালো না।’