১০, জুলাই, ২০২০, শুক্রবার | | ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

মুরাদনগরে বিদ্যালয়ের পরিবেশ উন্নয়ন ও ডিজিটাল হাজিরা কার্যক্রমের উদ্বোধন

আপডেট: অক্টোবর ২৬, ২০১৯

মুরাদনগরে বিদ্যালয়ের পরিবেশ উন্নয়ন ও ডিজিটাল হাজিরা কার্যক্রমের উদ্বোধন


কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ২০৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাস্তবায়িত পরিবেশ উন্নয়ন প্রকল্প এবং ৭৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসায় ডিজিটাল হাজিরা কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে।
উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শনিবার  উপজেলা পরিষদ মাঠে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি ও কুমিল্লা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন (এফসিএ)। অনুষ্ঠান সমূহের উদ্বোধন করেন কুমিল্লার জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিষেক দাশের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো: নুরুজ্জামান, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবদুল মজিদ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবদুল মান্নান। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ম. রুহুল আমিন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন আল রশিদ, সৈয়দ আবদুল কাইয়ুম খসরু।
বাঙ্গরা স:প্রা:বি: প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ (তমাল), সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইফুল ইসলাম কমল, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আলীনুর বশীর, মুরাদনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল খায়ের, শিক্ষা অফিসার ফওজিয়া আকতার, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সফিউল আলম তালুকদার,
সমাজসেবা অফিসার কবির আহাম্মদ, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক আফজালের রহমান, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা পারভীন আক্তার, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মুমিনুল হক, জেলা পরিষদের সদস্য খাইরুল আলম সাধন, ভিপি জাকির হোসেন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক গাজীউল হক চৌধুরী, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি উপজেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহেল রানা প্রমুখ।
এছাড়াও উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, জন-প্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা ও পরিবেশের মান উন্নয়ন ও ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সততা এবং সুশিক্ষা গ্রহনে প্রতিযোগিতা ও মানবিকতা আনয়নের লক্ষ্যে ১০টি উদ্যোগ গ্রহন করেন।
জেলা প্রশাসকের গৃহীত ১০টি উদ্যোগ মুরাদনগর উপজেলার ২০৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাস্তবায়ন করা হয়। ৭৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসায় বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ডিজিটাল হাজিরা কার্যক্রম চালু করা হয়েছে।