১৫, নভেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আদর্শের প্রতিক সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক

আপডেট: নভেম্বর ৮, ২০১৯

আদর্শের প্রতিক সংসদ সদস্য  শিবলী সাদিক

জাকিরুল ইসলাম, বিরামপুর, (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
চলমান শুদ্ধি অভিযানে নিজের স্বার্থ উদ্ধারে ভিন্ন মতাদর্শের নেতা আ’লীগে যখন সয়লাব। যখন আ’লীগে অনুপ্রবেশ করে দলের বিশাল ক্ষতির দিকে টানতে মরিয়া। ঠিক এই সময়ে চিরাচরিত স্বভাবের জানান দিয়ে, দলের আদর্শিক মনোভাবে অনড় হয়ে, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ধারণ ও বহন করে, জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থা অর্জন করে, আ’লীগের নিবেদিত প্রাণ হয়ে, আসীম মেধা আর পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলছেন সাবেক এমপি মরহুম মোস্তাফিজুর রহমান ফিজু’র সুযোগ্য সন্তান নবাবগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও দিনাজপুর-৬ আসনে দুই বারের বিপুল ভোটে বিজয়ী সংসদ সদস্য সর্বজন স্বীকৃত কর্মীবান্ধব ক্ষ্যাত নেতা শিবলী সাদিক এমপি।
দিনরাত বিরামহীনভাবে দলের স্বচ্ছতায় কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। তার নিজ নির্বাচনী এলাকার বাসভবন স্নপ্নপুরীতে (এমপি’র কার্য্যলয়) ঘুরে দেখা গেছে- দলের তৃনমূল থেকে শুরু করে সকল শ্রেণীর নেতাকর্মী সার্বক্ষণিক ভিড় করছেন প্রিয় নেতার সন্নিধ্য পাওয়ার জন্য। চার উপজেলার, পৌর, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড থেকে আসা তৃণমূল নেতাকর্মীরা প্রতিনিয়তই বিভিন্ন সহযোগিতার জন্য ভিড় জমান। কেবল দলের পোরখাওয়া আর ত্যাগী নেতাকর্মীদের নিয়েই সারাক্ষণ নানান কাজে ব্যাস্ত থাকেন শিবলী সাদিক এমপি। 
তিনি বলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক আর ত্যাগি এবং খাঁটি আ’লীগ নেতাকর্মীদের জন্য আমার দরজা সবসময় খোলা থাকে।
দলের ভেতরে অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে জানতে চাইলে আ’লীগের আদর্শ কান্ডারী শিবলী সাদিক প্রতিবেদক’কে বলেন, আমার কাছে কোনও অনুপ্রবেশকারী এবং অযোগ্য লোকের স্থান নেই, সে আমার যত বড়ই স্বজনই হোক না কেন, আমি স্পষ্টই বলতে পারি, বঙ্গবন্ধুর আ’লীগ ও শেখ হাসিনার আ’লীগে আমার জীবন থাকতে, অন্তত আমার হাত ধরে কোনও অনুপ্রবেশকারী দলের ভিতরে ঢুকতে পারেনি, আগামীতেও পারবে না। কেননা আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শেখ হাসিনার রাজনীতি করি।
আ’লীগের এই কর্মীবান্ধব নেতা সারাক্ষণ দলের তৃণমূল, আদর্শ, আর দলের স্বচ্ছতা নিয়েই দিবা-রাত্র স্বপ্নে বিভোর থাকেন। শুধু তাই নয়, আ’লীগের বিভিন্ন পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অক্লান্ত পরিশ্রম করে দলের সুনাম অক্ষুন্ন রেখে দলীয় প্রধানের আস্থাভাজন হয়েছেন। আর সেকারণেই দলের ত্যাগী নেতাকর্মীরা ভালোবাসেন তাদের প্রিয় নেতা শিবলী সাদিককে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, কিছু সুবিধাভুগি ব্যাক্তিরা শিবলী সাদিকের কাছ থেকে ব্যাক্তি স্বার্থে অনেক সুযোগ সুবিধা নিতে আসেন। যাদের অনেকেই অনুপ্রবেশকারী এবং অযোগ্য হওয়ায় কোন কাজ বা সুবিধা না দেওয়ায় বিভিন্ন জায়গায় মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য সরবরাহ করেছে। এতে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে বলে জানিয়েছেন দলের একাধিক নেতাকর্মী। 
শিবলী সাদিকের নিজ নির্বাচনী এলাকায় খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, দিনাজপুর-৬ আসনের বিরামপুর, নবাবগঞ্জ, হাকিমপুর ও ঘোড়াঘাট বাসীর কাছে সংসদ সদস্য ও ব্যাক্তি শিবলী সাদিক একজন মাটি ও মানুষের নেতা, নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নের রুপকার, শিক্ষানুরাগী ও একজন নির্ভিক সমাজসেবক। চার উপজেলার শান্তিরদূত, লক্ষ মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন। দিনাজপুর-৬ সংসদীয় এলাকাবাসীর ভালোবাসার অপর নাম শিবলী সাদিক।
বিরামপুর, নবাবগঞ্জ, হাকিমপুর ও ঘোড়াঘাট এলাকাবাসী বলেন, চার উপজেলা একটি শান্তির নগরী হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এমপি শিবলী সাদিকের ভালোবাসায় চার উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের মানুষ আজ একে অপরের প্রতি সন্মান দিতে শিখেছেন। মানুষে মানুষে সৌহার্দ্য সম্প্রীতির সাম্যে শান্তিতে বসবাস করছে।