১৫, নভেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

মাদারীপুরে জমিজমা নিয়ে অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ দুজন জখম

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৯

মাদারীপুরে জমিজমা নিয়ে অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ দুজন জখম

রাকিব, মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি
জ‌মিজমা নিয়ে তর্ক বির্তক করে  মাদারীপুর সদর উপজেলার কু‌নিয়া ইউনিয়নের ত্রিভাগদী গ্রামে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ দুজনকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে দূর্বরা। আহত ব্যক্তিদেরকে  মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভ‌র্তি করা হয়েছে।ভুক্তভোগী প‌রিবার তথ্য অনুযায়ী  জানা গেল, ত্রিভাগদী এলাকার মাসুদ কাজী (৫০) একই এলাকায় তার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারির (৩৮) সাথে জমি প‌রিমাপের বিষয় আলাপ আলোচনা করে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথার  কাটাকাটি শুরু হয় তারপর উভয় পক্ষের মধ্যে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে হয়।  এতে মাসুদ কাজী ও তার অন্তঃসত্ত্বা ভাগ‌নি মিতু আক্তার (২২) রামদার কোপে মারাত্মক আহত হয়। পরে স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।আহত মাসুদ কাজী বলেন, ‘আমাদের সবার বাড়িই পাশাপাশি ও আত্মীয় হই। সন্ধ্যার দিকে আমি আমার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারিকে ডেকে জমি মাপের কথা বলি। এতে আকরাম ক্ষিপ্ত হয়ে খুব গালাগালি করে। গালাগালি শুনে আশপাশের আত্নীয় স্বজনরা ছুটে আসে। ঝগড়াঝাটির মধ্যেই আকরাম ও তার অন্য ভাইরা মিলে ঘর থেকে রামদা এনে আমাদের উপর আক্রমণ করে হাতে পায়ে কোপ দেয়। এ‌তে আমার ছয় মাসের অন্তঃসত্বা ভাগনিও সেখানে উপস্থিত ছিলো তার সে মারামারি ঠেকাতে গিয়েছিল বলে এক পর্যায়ে তার পেটে রামদার ঘাটা দিয়ে আঘাত করে।এই ঘটনা নিয়ে মিতুর বাবা লতিফ হাওলাদার বলেন, ‘আমার অন্তঃসত্ত্বা মেয়ের পেটের উপর ওরা রামদার ঘারা দিয়ে আঘাত করেছে। আমাদের জেলা প্রশাসক কাছে দাবী  ওদের একটা সুস্থসবল বিচার চাই।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ককর্মরত  চিকিৎসক ডা. রিয়াদ মাহমুদ বলেন, ‘দু’জনেই চিকিৎসাধীন আছে। তবে অন্তঃসত্বা মিতু আক্তারের কথা পরিক্ষা নিরীক্ষা ছাড়া এখনো আমরা  কিছু বলতে পারবো না।’মাদারীপুর সদর থানার এসআই খোসরুজ্জামান বলেন’ ‘অভিযোগ পেয়ে আমরা সঙ্গে সঙ্গে সদর হাসপাতালে যাই,আমরা  তদন্ত করে এর উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।