১৩, ডিসেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

ফুলবাড়িয়ায় ৪ প্রতিবন্ধী পরিবার পেলো সিএনজি

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০১৯

ফুলবাড়িয়ায় ৪ প্রতিবন্ধী পরিবার পেলো সিএনজি


মোঃ হাবিবুল্লাহ হাবিব,ফুলবাড়িয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ একই পরিবারের ৪ নারী প্রতিবন্ধীদের নিয়ে বিভিন্ন দৈনিক পত্র-পত্রিকায় ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম  ফেসবুকে সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক ব্যাক্তিদের নজরে আসে। রোববার উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুল সিদ্দিক প্রতিবন্ধি ৪ কন্যার পিতা ইব্রাহীম মিয়া হাতে ৪ লাখ টাকায় ক্রয় করা একটি নতুন সিএনজি’র চাবি তুলে দেন। এ ছাড়াও ইউএনও বিভিন্ন ব্যক্তির সহায়তায় আরো ৬২ হাজার টাকায় একটি বাছুরসহ গাভী কিনে দেন। এর আগে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে হতদরিদ্র পরিবারের প্রতিবন্ধি দুই বোন শাবনুর ও পারভীনকে প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড ও তাদের নানীর হাতে বয়স্ক ভাতার কার্ড তুলে দেন ইউএনও আশরাফুল সিদ্দিক। ইউএনও আশরাফুল সিদ্দিক বলেন, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তির ৪ লাখ টাকায় সহায়তা প্রদান করলে এই অসহায় পরিবারকে স্বচ্ছলভাবে চলার জন্য একটি নতুন সিএনজি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার রাধাকানাই ইউনিয়নের চৌরঙ্গীপাড় গ্রামে এক দরিদ্র পরিবারের ৫ কন্যা সন্তানের মধ্যে ৪ জনই শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় পরিবারটি মানবেতর জীবনযাপন করছিল। হতদরিদ্র দিনমুজুর ইব্রাহিম আলীর (৭০) প্রতিবন্ধী চার কন্যা পারভীন আক্তার (৩৫), বিউটি আক্তার (২০), তাপুসি (১৫) ও শাবনুর (১১)। এখন তারা সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতায় প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড পেয়েছে। প্রতিবন্ধি ৪ কন্যার হতদরিদ্র নানী কুলসুম বেওয়াকে বয়স্ক ভাতার কার্ড দেন ইউএনও। প্রতিবন্ধি ৪ কন্যার পিতা ইব্রাহিম মিযা বলেন, আল্লাহর রহমতে এখন দিনকাল মুটামুটি ভালই চলছে। স্থানীয় স্বাস্থ্য সহকারী শাকিল চৌধূরী জানান, হতদরিদ্র নানী কুলসুম বেওয়ার ভাগ্যে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ডের টাকা। কার্ড  পাওয়ার ৩ দিন পর সে মারা যান।