২২, এপ্রিল, ২০২১, বৃহস্পতিবার | | ১০ রমজান ১৪৪২

প্রতিবন্ধী রফেজ আকন শেষপর্যন্ত ভাতার কার্ড হাতে পেলো

আপডেট: ডিসেম্বর ২২, ২০১৯

প্রতিবন্ধী রফেজ আকন শেষপর্যন্ত ভাতার কার্ড হাতে পেলো

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি ঃ কলাপাড়ার টিয়াখালী ইউনিয়নের প্রতিবন্ধী রফেজ আকন শেষপর্যন্ত প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড পেলো। প্রায় এক যুগ ধর্না ধরেও জোটেনি যার প্রতিবন্ধী ভাতা। এরপর বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক আঞ্চলিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে এমন খবর প্রকাশের পর রবিবার বেলা দুইটায় উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে এ ভাতার কার্ড তুলে দেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্র্তা মিজানুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন টিয়াখালী ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান দুলালী বেগম, কলাপাড়া রিপোর্টার্স ইউনিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাংবাদিক মিজানুর রহমান বুলেট আকন, ইউনিয়ন সমাজকর্মী নিলুফা বেগম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ৭ ডিসেম্বর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে বলা হয়, অচল দুটি পায়ে কুঠার নিয়ে ঘুরে বেড়ান মানুষের বাড়ী বাড়ী। কুঠার দিয়ে কাঠ চেরাইয়ের কাজ করে চলে রফেজের সংগ্রামী জীবন। কাঠ চেরাইয়ের কাজ না পেলে পতিত জমিতে জন্মানো শাক-সবজি তুলে বিক্রি করেন তিনি। আর এ সবজি বিক্রি করে যা আয় হয় তা দিয়ে খেয়ে না খেয়ে চলে রফেজের সংসার। দীর্ঘ এক যুগ ধরে মেম্বর, চেয়ারম্যানের দুয়ারে ধর্না দিয়েও মেলেনি প্রতিবন্ধি ভাতা। এমন খবর প্রকাশিত হলে জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরীর নির্দেশক্রমে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা তদন্তের মাধ্যমে রফেজ আকনের হাতে ভাতার কার্ড তুলে দেন।

ভাতার কার্ড হাতে পেয়ে রফেজ আকন কান্না জরিত কন্ঠে বলেন, জীবনে কল্পনাও করিনি ভাতার কার্ড পাবো। আজ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সমাজসেবা কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের সহযোগিতায় ভাতার কার্ড পেলাম। যাদের মাধ্যমে ভাতার কার্ড পেয়েছি তাদের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় অবগত হয়ে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় শারীরীক প্রতিবন্ধী রফেজ আকনকে ভাতার কার্ড প্রদান করা হলো।