২, এপ্রিল, ২০২০, বৃহস্পতিবার | | ৮ শা'বান ১৪৪১

পটুয়াখালীতে সবুজ ও রুমান প্রায় ২’শ কোটি টাকা নিয়ে উধাওপ্রতিবাদে শত শত নারী পুরুষের মানববন্ধন

আপডেট: ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯

পটুয়াখালীতে সবুজ ও রুমান প্রায় ২’শ কোটি টাকা নিয়ে উধাওপ্রতিবাদে শত শত নারী পুরুষের মানববন্ধন

পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধি মোঃ সাইফুল ইসলাম

পটুয়াখালীতে প্রতারক চক্রের  গডফাদার নাসির উদ্দিন সবুজ, কুদ্দুস, বাদল, রহিম, আমিনুল, বাদল মোল্লাগং কর্তৃক ভুয়া নিউ নাভানা কোম্পানীর নামে গরু-বাচুর বেচা-কেনার মাধ্যমে দুই-’শ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার প্রতিবাদে ভুক্তভোগী শত শত নারী পুরুষের মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে।শনিবার বিকাল ৪টায় আউলিয়াপুর ইউনিয়ন এলাকার ফতুল্লা বাজার নামক মহসড়কে প্রতারক চক্রে প্রধান নাসির উদ্দিন সবুজ, কুদ্দুস, বাদল, রহিম, , বাদল মোল্লাগং কর্তৃক ৫০ হাজার টাকার গরু নিয়ে একমাস পর ৭০ হাজার টাকা এবং তিন লক্ষ টাকা নেিয় একমাস পর পাঁচ লক্ষ টাকা দেয়ার কথা বলে ১০ সহা¯্রাধিক নারী পুরুষের কাছ থেকে ২’শ কোটি টাকার বেশী টাকা হাতিয়ে নিয়ে ঊধাও হওয়া ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন শত শত ভুক্তভোগী নারী পুরুষ। মানববন্ধন কর্মসূচী পালনকালে  উক্ত প্রতারক চক্রের কবলে পরা ভুক্তভোগী আউলিয়াপুর ইউনিয়নের নেছার হাওলাদার জানান, সবুজ ও কুদ্দুস গং আমার ৪০ হাজার টাকার মূল্যের একটি গাভী গরু ও একটি বাচুর নিয়ে একমাস পর   ৭০ হাজার টাকা দেয়ার কথা বলে নিয়ে যায়। একইভাবে বেশী টাকা দেয়ার লোভ দেখিয়ে একই এলাকার সালাম আকনের,শাহীন হাওলাদারের, তাসলিমা বেগমের, জাকিরসহ আউলিয়াপুর, মরিচবুনিয়া ও বদরপুর ইউনিয়নসহ আশপাশের বিভিন্ন ইউনিয়নের শত শত নারী পুরুষের কাছ থেকে গরু বাচুর ও নগদ টাকা উক্ত প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিয়ে গত বৃহষ্পতিবার রাতে সবাই লাপাত্তা হয়ে যায়। ভুক্তভোগীরা জানান, উক্ত প্রতারক চক্রের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একটি দালাল চক্র বিভিন্নভাবে বেশী টাকা দেয়ার লোভ দেখিয়ে দুই’শ কোটি টাকার বেশী টাকা নিয়ে গেছে। এ প্রতারক চক্রের কর্মকান্ড নিয়ে সংবাদ করার ভয় দেখিয়ে  অচেনা কয়েকজন সাংবাদিক সুবিধা নিয়েছে বলেও স্থানীয়রা জানান। মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা উক্ত চক্রকে গ্রেফতার করে লুট করে নেয়া ফেরত পেতে পারে তার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। উক্ত চক্রের  হাতে শত শত মানুষ নিঃস্ব হয়ে অসহায় পরেছেন বলেও এলাকাবাসী জানান। পুলিশ প্রশাসন পদক্ষেপ নিলে এ চক্রকে আটক করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারেন বলেও স্থানীয়রা দাবী করেন।