৮, ডিসেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

ঝিনাইদহের নলডাঙ্গাই দলীয় কোন্দলে হামলা আতংকে পুরুষশুণ্য ৩০টি পরিবার !

আপডেট: ডিসেম্বর ৯, ২০১৮

ঝিনাইদহের নলডাঙ্গাই দলীয় কোন্দলে হামলা আতংকে পুরুষশুণ্য ৩০টি পরিবার !
 ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃসামাজিক দল না করায় আওয়ামী লীগের অপর পক্ষের হামলার ভয়ে আতংকে পুরুষশুণ্য ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের বাগুটিয়া গ্রামের ৩০টি পরিবার। ভয় আর আতংকে দিন কাটাচ্ছে ওই সব পরিবারের নারীরা।
এভাবে চলতে থাকলে প্রভাব পড়বে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে। তাই দ্রুত এসমস্যা সমাধানের দাবি স্থানীয়দের। জানা যায়, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা ও সদর উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ঝিনাইদহ-৪ সংসদীয় আসন।

দীর্ঘদিন যাবত আসনটিতে বর্তমান সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের দলীয় কোন্দল চলছে। গত ২৫ নভেম্বর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আনোয়ারুল আজীম আনারকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার পর ওই গ্রামের মাতব্বর চাঁদ আলী মান্নানের সমর্থকদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেওয়া শুরু করে।

হামলার ভয়ে গ্রামের মোবাশ্বের হোসেন, আবুল কাশেম, মখলেছুর রহমান, আবু তালেব, হাকিম বিশ্বাস, কোবাদ আলী, বাবু লস্কর, মোফাজ্জেল হোসেন, আবু মুসা, মাহাতাব হোসেন, নুরুল ইসলাম, সমির উদ্দিন, পান্নু হোসেনসহ ৩০ টি পরিবারের পুরুষ সদস্যরা বর্তমানে বাড়িছাড়া। হামলা ও মারধরের ভয়ে পরিবারের পুরুষ সদস্যরা বিভিন্ন গ্রামে ও আত্মীয়দের বাড়িতে অবস্থান করছে।

আর ভয়ে দিন কাটাচ্ছে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। সরেজমিনে ভুক্তভোগিদের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় পুরুষ সদস্য না থাকায় পরিবারের নারী সদস্যরা ধান মাড়ায়সহ সকল কাজ করছেন। মোবাশ্বের হোসেনের মেয়ে ঝিনাইদহ সরকারি কেসি কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্রী পলি খাতুনকে ধান মাড়ায় করতে দেখা যায়।

তিনি জানান, চাঁদ আলীসহ অন্যান্যদের মারধরের ভয়ে তার পিতা বাড়ি ছাড়া। মাঠের ধান কেটে এনে তিনি ও তার মা কহিনুর বেগমকে মাড়ায় করতে হচ্ছে।

কাশেমের স্ত্রী শুকুরোন নেছা জানান, ৭ দিন আগে রাত ১১ টার দিকে চাঁদ আলী, জাফরসহ ১০/১২ জন লোক বাড়িতে এসে হুমকি দিয়ে যায়। তারা আমার স্বামীকে আনার গ্রুপ না করলে হত্যার হুমকিও দেয়। সেই ভয়ে স্বামী পলাতক রয়েছে।

এছাড়াও প্রায় প্রতি রাতে বিভিন্ন ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে নারী সদস্যদের অকথ্য ভাষায় গালা-গালি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় ইউপি মেম্বর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান বলেন, ২৭ বছর ধরে আওয়ামী লীগ দল করছি। মান্নান গ্রুপের সমর্থক হওয়ায় আমার ও আমার সমর্থকদের মারধর ও বাড়ি ছাড়া করা হয়েছে। এতে সংসদ নির্বাচনে এ গ্রাম থেকে আওয়ামী লীগের জয় পাওয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে।

তবে অভিযুক্ত চাঁদ আলী বলেন, তেমন কিছু বলা হয়নি। তারা নিজেরাই ভয়ে বাড়ি ছেড়েছে। তারা বাড়িতে আসলেও কোন সমস্যা নেই না আসলেও কোন সমস্যা নেই। এটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। এ ব্যাপারে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির হোসেন এ সমস্যা সমাধানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।