২৫, নভেম্বর, ২০২০, বুধবার | | ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

টাঙ্গাইলের সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলা

আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০২০

টাঙ্গাইলের সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী  হামলা

কালিহাতী(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে জুয়ার আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালিয়েছে জুয়াড়িরা।

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাশবন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। হামলায় ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার, ক্যামেরাম্যান আশিকুর রহমান, দৈনিক ইত্তেফাকের সাংবাদিক অভিজিৎ ঘোষ, দৈনিক একুশের বাণী পত্রিকার সাংবাদিক মোহাইমিনুল ইসলাম হ্রদয়সহ আরো দুইজন আহত হয়েছে। এসময় ডিবিসির ক্যামেরা ও বুম (মাইক্রোফোন) ভাঙচুর করা হয়। পরে আহতদের টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। 
 সাংবাদিকরা জানায়, উপজেলার গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাশবন এলাকায় স্থানীয় প্রভাবশালী ফজল মন্ডলের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে জুয়ার আসর চলছিল। টাঙ্গাইল ও দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে শতাধিক জুয়াড়ি সেখানে নিয়মিত জুয়া খেলতে আসতো। জুয়া আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে হামলার স্বীকার হয়েছে চারজন সাংবাদিকসহ ৬জন। পরে সন্ত্রাসীরা সাংবাদিক সোহেল তালুকদার, অভিজিৎ ঘোষ. আশিকুর রহমান, মোহাইমিনুল ইসলাম হ্রদয়সহ নৌকার দুই মাঝিকে ব্যাপক মারধর করা হয়। মারধর শেষে একটি ক্যামেরা ভাঙচুর ও আরেকটি ক্যামেরাসহ মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া সাংবাদিকদের সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা এসে সাংবাদিকদের উদ্ধার করে গোবিন্দাসী ঘাটে পৌঁছে দেয়। হামলায় আহত ৬জনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।
হামলায় আহত ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার বলেন, জুয়াড়ির প্রধান ফজল মন্ডল আমাদের সামনে একজনকে মোবাইলে বলেন, স্যার আপনাদের পুলিশের কোন লোক আসছে কিনা। এরপরই আতর্কিতভাবে হামলা চালায় জুয়াড়িরা। হামলায় চারজন সাংবাদিকসহ ৬জন আহত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, গোবিন্দাসী ইউনিয়ন ট্রাক শ্রমিক সমিতির সাধারন সম্পাদক ফজল মন্ডলের নেতৃত্বে সেখানে বিশাল ধরনের জুয়ার আসর চলছিল দীর্ঘদিন যাবৎ। সেখানে সংবাদ সংগ্রহে গেলে জুয়ারিসহ সন্ত্রাসীরা আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে ভিডিও ক্যামেরা ও বুম ভাঙচুর করে এবং প্রাণে বাচিঁয়ে রাখার শর্তে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে দেয়। 
গোবিন্দাসী ইউনিয়ন ট্রাক শ্রমিক সমিতির সাধারন সম্পাদক ও জুয়া আসনের প্রধান ফজল মন্ডল জানান, থানার ওসিসহ প্রশাসনের নানা মহলে মাসোহারা দিয়ে জুয়ার আসর চালানো হয়। দীর্ঘদিন যাবতই এই এলাকায় জুয়ার আসর চলছে। 
টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তানভীর আহম্মদ বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর গুরুত্বর আহত চারজন সাংবাদিকসহ ৬জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসে। এরমধ্যে চারজনের অবস্থা খুবই গুরুত্বর। তাদের বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা দেয়া হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্টগুলো পাওয়ার পর তাদের শরীরে কি ধরনের ক্ষতি হয়েছে তা জানা যাবে। 
ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশিদুল ইসলাম জানান, গোবিন্দাসী ঘাট পৌংলী পাড়া এলাকার চরে যে জুয়াড় আসর বসতো তা জানা ছিল না। সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।