২১, এপ্রিল, ২০২১, বুধবার | | ৯ রমজান ১৪৪২

সন্দ্বীপে যুবলীগ নেতার ঘরে সৌরভের মোবাইল!”মামলার জট খোলার আশা পুলিশের”

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২০

সন্দ্বীপে যুবলীগ নেতার ঘরে সৌরভের মোবাইল!”মামলার জট খোলার আশা পুলিশের”

হালিশহর থানা প্রতিনিধি। ২৯ জানুয়ারী ২০২০ 

সন্দ্বীপে হত্যার শিকার হওয়া কিশোর সৌরভের ব্যবহৃত সেই মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (২ জানুয়ারি) উপজেলা যুবলীগ নেতা ওমর ফারুকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার ঘরে অভিযান চালিয়ে ওই মোবাইল উদ্ধার করে সন্দ্বীপ থানা পুলিশ। এ সময় ওই ঘর থেকে সৌরভের ব্যবহৃত লুঙ্গির কিছু অংশও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এর আগে ২৩ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) সৌরভ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে ওমর ফারুক (৩২) প্রকাশ কালা ফারুককে সাভার থেকে গ্রেপ্তার করে সন্দ্বীপ নিয়ে আসেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সন্দ্বীপ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল হালিম। ওদিনই ফারুককে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডে ফারুকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। ফারুকের ঘর থেকে উদ্ধার হওয়া সৌরভের মোবাইল ও লুঙ্গির অংশ শনাক্ত করেছেন নিহত সৌরভের ভাই মেহেদি হাসান।

গ্রেপ্তার হওয়া ওমর ফারুক সন্দ্বীপ উপজেলা যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য। তিনি মগধরা ইউনিয়নের মোহাম্মদ আলী হাজীর বাড়ির শামসুল হকের ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এলাকায় প্রভাবশালী একজন নেতার ছত্রছায়ায় ইয়াবার ব্যবসা করতেনওমর ফারুক ও তার দলবল।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রেপ্তার হওয়া ফারুকের ঘরেই হত্যা করা হয়েছিল সৌরভকে। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর সৌরভকে মোটরসাইকেলে করে নিয়ে গিয়ে আক্তার হোসেনের পুকুর পাড়ে ফেলে রেখে আসে হত্যাকারীরা। সৌরভ হত্যা মামলায় রাব্বী নামে এক আসামি আদালতে দেয়া ১৬৪ ধারার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসব তথ্য জানিয়েছিল বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ফারুকসহ গত দুই মাসে সৌরভ হত্যার অভিযোগে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করলো সন্দ্বীপ থানা পুলিশ। ক্লু-লেস এই মামলার তদন্তে বেশ সন্তোষজনক অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে পুলিশ বলছে এই হত্যাকাণ্ডের বাকি জটগুলোও খুব শীঘ্রই খুলে  যা।