৭, আগস্ট, ২০২০, শুক্রবার | | ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সালথায় সরকারী হালট কেটে পুকুর খনন করার অভিযোগ: জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন এলাকাবাসী

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২০

সালথায় সরকারী হালট কেটে পুকুর খনন করার অভিযোগ: জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন এলাকাবাসী

ফরিদপুর প্রতিনিধি :

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের শোনমানশাহ গ্রামে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে সরকারী হালট কেটে পুকুর খনন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারী হালট রক্ষার্থে জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন এলাকাবাসী।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, আটঘর ইউনিয়নের ২২ নং শোনমানশাহ মৌজার মাঠে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে সরকারী হালটের আনুমানিক ১৫ শতক জমি কেটে পুকুর খনন করেছে ঐ গ্রামের নুয়াই মাতুব্বারের ছেলে আজাদ মাতুব্বার ও তার চাচাভাই সোরাফ মাতুব্বার। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঐ গ্রামের এক ব্যক্তি বলেন, কয়েকটি গ্রামের মানুষ এই হালট দিয়ে মাঠে যাতায়াত করে থাকেন। এই হালটটি আগে ২৫/৩০ হাত আড়ে ছিলো। জমিওয়ালারা কেটে আগেই ছোট করে ফেলেছে। এবার হালট কেটে পুকুর খনন করায় মানুষের চলাচলে বিঘœ হবে। স্থানীয় কিছু মাতুব্বারদের ম্যানেজ করে তারা প্রভাব খাটিয়ে সরকারী হালট কেটে পুকুর খনন করেছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। সরকারী হালট রক্ষার্থে ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন এলাকাবাসী।

এবিষয়ে আজাদ মাতুব্বার বলেন, সরকারী হালট যদি আমার পুকুরের মধ্যে থাকে তাহলে দক্ষিনে আমার জমি আছে, সেখান থেকে হালটের জন্য ছেড়ে দিবো। এছাড়াও গ্রামবাসীদের বলেছি, যদি সরকারী হালট কেটে থাকি তাহলে প্রতি বছর গ্রামের মসজিদে কিছু অর্থ দিয়া দিবো।

আটঘর ইউনিয়ন ভূমি অফিসার মোঃ ওবায়দুর রহমান বলেন, সরকারী হালট কেটে পুকুর খননের বিষয়টি জানলাম। সরোজমিনে গিয়ে বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।

সালথা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ হাসিব সরকার বলেন, সরকারী হালট কেটে পুকুর খনন করার বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।