৪, আগস্ট, ২০২০, মঙ্গলবার | | ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

খুনের রাজনীতি দেশ থেকে চিরতরে বন্ধ হোক: তথ্যমন্ত্রী

আপডেট: আগস্ট ১, ২০২০

খুনের রাজনীতি দেশ থেকে চিরতরে বন্ধ হোক: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশের খুনের রাজনীতি যেন চিরতরে বন্ধ হয়ে যায় সেটাই ঈদের দিনে আমাদের প্রত্যাশা।

শনিবার (১ আগস্ট) জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ঈদুল আজহার চতুর্থ জামা‌তে নামাজ আদায় ক‌রে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারি সারা দেশে, সারা পৃথিবীতে। এ পরিস্থিতিতে আমরা পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করছি। ঈদুল আজহা উদযাপন করছি, আজকের এ দিনে মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা ভাইরাস থেকে বাংলাদেশকে এবং সারা বিশ্বের মানুষকে তিনি যেন মুক্ত করে দেন।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, করোনার মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবানিশি কাজ করে দেশকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন। আমাদের বাংলাদেশকে তিনি গত সাড়ে ১১ বছরে একটি নতুন উচ্চতায় উন্নীত করেছেন। আল্লাহর কাছে আজকের এই দিনে প্রার্থনা, তার নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশকে স্বপ্নের ঠিকানা নিয়ে যেতে চাই। সেই স্বপ্নের ঠিকানায় যাতে আমরা বাংলাদেশকে নিয়ে যেতে পারি এটাই অাজ‌কের প্রার্থনা।

আজকে শো‌কের এ মা‌সে এ দিনে বাংলাদেশের খু‌নের রাজনীতি যেন চিরতরে বন্ধ হয়ে যায় সেটাই আমাদের প্রত্যাশা। আজকের এই দিনে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাই। ইনশাল্লাহ আগামী বছর সম্পূর্ণ ক‌রোনা মুক্ত পরিবেশে যেন ঈদ উদযাপন করতে পা‌রি সেটি আমাদের প্রত্যাশা।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। এ দেশে আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিশ্চয়ই পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোর মতো নয়। আমাদের অর্থনৈতিক স্বাস্থ্য উপকরণ তাদের মতো উন্নত না হওয়া সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকা‌বিলায় প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। সেই কারণেই বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হ‌য়ে মৃত্যুর হার অন্যান্য দেশের মধ্যে অনেকটা কম। যদি সরকার সঠিকভাবে ব্যবস্থা না নিতে পারতো তাহলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মৃত্যুর হার ভারত-পাকিস্তানের চেয়েও বে‌শি হ‌তো। এটা সঠিক ভাবে নেতৃত্ব দেওয়ার কারণেই আজকে এটি সম্ভব হয়েছে।

বিএনপির প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, পবিত্র ঈদের সময় গতানুগতিক রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসুন। আমরা সম্মিলিতভাবে দেশ গড়তে চাই আসুন সবাই মিলে সম্মিলিতভাবে আক্রান্ত থেকে হাত থেকে মুক্ত রাখার জন্য সবাই সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাই। এটাই পবিত্র ঈদের দিনের প্রত্যাশা।