২২, এপ্রিল, ২০২১, বৃহস্পতিবার | | ১০ রমজান ১৪৪২

ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) আসন ফুলবাড়ীয়ায় প্রচারে এগিয়ে আওয়ামীলীগ, কৌশলী বিএনপি

আপডেট: ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮

ময়মনসিংহ-৬  (ফুলবাড়ীয়া) আসন ফুলবাড়ীয়ায়  প্রচারে এগিয়ে আওয়ামীলীগ, কৌশলী  বিএনপি

মোঃ হাবিবুল্লাহ হাবিব, ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : আসন্ন ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ  নির্বাচনে, ১৫১, ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) আসনে জমে উঠেছে নির্বাচনী আমেজ, চা স্টল থেকে শুরু করে রাস্তা-ঘাট হাট-বাজারে এখন একটাই আলোচনা কে যাবেন, ফুলবাড়ীয়ার অভিভাবক হয়ে সংসদে।  আওয়ামী পরিবারের বয়োজেষ্ঠ নেতা মহাজোট মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীক ফুলবাড়িয়া থেকে ৫ বারের এমপি গন-পরিষদ সদস্য উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোসলেম উদ্দিন এড. নাকি বিএনপি মনোনীত ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকের  ইঞ্জিঃ শামছ উদ্দিন আহম্মদ। এখানে  আওয়ামীলীগ যতোটা সংক্রিয় তবে বিএনপি ততটা নয়।  এখন বিএনপির বেশির ভাগ মাইকিং করে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন।  কিছু কিছু জায়গায় আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বিএনপির পোষ্টার ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গণসংযোগ চালাচ্ছেন আলহাজ্ব মোঃ মোসলেম উদ্দিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই সরকারের উন্নয়নের  অবদান দেখিয়ে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন।  অপর দিকে বিএনপি  আওয়ামী লীগের দুঃশাসন গনতন্ত্রের মুক্তি চেয়ে ধানের শীষে ভোট চাচ্ছে। অতীতের দিকে তাকিয়ে দেখলে এই আসনে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগ  অনেকটা এগিয়ে। বিএনপির ধানের শীষ নিয়ে এখনও ইঞ্জিঃ শামছ উদ্দিন আহম্মদ নির্বাচিত হতে পারেননি। আওয়ামীলীগ থেকে আলহাজ্ব মোঃ মোসলেম উদ্দিন ৫বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এবার প্রেক্ষাপট ভিন্ন ফুলবাড়ীয়া ডিগ্রী কলেজ সরকারী না হওয়ার কারণে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পরেন আলহাজ্ব মোঃ মোসলেম উদ্দিন এড.। দুই দলের কাছেই ১৫১, ময়মনসিংহ-৬(ফুলবাড়ীয়া) এই আসন  অধিক গুরুত্বপূর্ণ। ৩০ ডিসেম্বরে জানা যাবে, কে হবেন এই আসনের সংসদ সদস্য। আওয়ামী লীগ চেষ্টা চালাচ্ছে আসনটি ধরে রাখতে অপরদিকে বিএনপি চাচ্ছে এ আসনটি পেতে। জনগণের রায়ে বিচার হবে আওয়ামী লীগের নৌকা নাকি ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ। পৌরসভাসহ ১৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত উপজেলা। ১১৩টি ভোট কেন্দ্রে  ভোটার আছেন ৩ লক্ষ ২৫ হাজার ৭৪০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোট আছে ১ লক্ষ ৬৩ হাজার ৮৩৩ জন। আর নারী ভোটার আছে ১ লক্ষ ৬১ হাজার ৯০৭ জন।

ফুলবাড়িয়া আসনে ১৯৭৩ সালে আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম নির্বাচিত হন। এ ছাড়া ১৯৮৬, ১৯৯৬, ২০০৮ ও ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের মোসলেম উদ্দিন অ্যাডভোকেট নির্বাচিত হন। বিএনপি থেকে ১৯৯১ সালে আমিরুল ইসলাম হিরা ও ২০০১ সালে ইঞ্জিনিয়ার শামসউদ্দিন নির্বাচিত হন। ১৯৭৯ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুল্লাহ সরকার এমপি নির্বাচিত হন।