২২, জানুয়ারী, ২০২০, বুধবার | | ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

দেবিদ্বারে স্কুল ছাত্র হত্যা কান্ডের ঘটনার সাত দিনের মধ্যে রহস্য উদঘাটন

আপডেট: জানুয়ারি ২১, ২০১৯

দেবিদ্বারে স্কুল ছাত্র হত্যা কান্ডের ঘটনার সাত দিনের মধ্যে রহস্য উদঘাটন

কুমিল্লার দেবিদ্বারে স্কুল ছাত্র জয় চন্দ্র ঘোষ(১৩)’র নিখোঁজ হওয়ার ৭দিন পর মরদেহ মন্দিরের পাশে মাটি চাপায় গুমকরে রাখা অবস্থায় উদ্ধার করেছে দেবিদ্বার থানা পুলিশ। ওই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ৪ আসামী জয়ের বন্ধু নয়ন, দূর্জয়, সুশান্ত, দ্বীপ্তকে আটক করা হয়। দেবিদ্বার থানার ওসি মোঃ জহিরুল আনোয়ার জানান, মরদেহ উদ্ধারের পরপর আমরা অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত আসামী দূর্জয়কে প্রথমে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদে বেড়িয়ে এক লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের বিবরণ। একটি মোবাইল সেট বেচা-কেনাকে কেন্দ্র করে ক্রেতা দূর্জয়-বিক্রেতা জয়’র মধ্যে মূল্য নির্ধারণ নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরধরে চার বন্ধু মিলেই জয়কে পিটিয়ে হত্যা করেছে। পরে দূর্জয়ের দেওয়া স্বীকারোক্তী অনুযায়ী উপজেলার ভিবিন্ন স্থান থেকে অপর তিন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়।আকট কৃতরা হলো- বরকামতা গ্রামের শীতল চন্দ্র দাসের পুত্র দূর্জয় চন্দ্র দাস(১৩), সুনীল চন্দ্র দাসের পুত্র সুশান্ত চন্দ্র দাস(১৫), মৃত স্বপন কুমার কর’র পুত্র দ্বীপ্ত কর(১৫) ও একই গ্রামের ভজন চন্দ্র দাসের পুত্র নয়ন দাস(১৫)। গত শনিবার(১৯জানুয়ারী) বিকেলে পুলিশ আটকৃতদের কুমিল্লা বিশেষ আদালত, ৯নং (কুমিল্লা সদর দক্ষিণ) আমলী আদালতে হাজির করার পর, অভিযুক্তরা আদালতে বিচারক চন্দন কান্তি নাথ’র নিকট ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদানকালে ওই হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে এবং হত্যাকান্ড সংগঠনের লোমহর্ষক বিবরণ প্রদান করে। বিচারক চন্দন কান্তি নাথ তাদের জবানবন্দি নথিভূক্ত করে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন।