২৮, জানুয়ারী, ২০২০, মঙ্গলবার | | ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

যবিপ্রবিতে শিক্ষকদের চলমান কর্মসূচী অব্যাহত : ক্লাস পরীক্ষা বর্জন

আপডেট: জানুয়ারি ২১, ২০১৯

যবিপ্রবিতে শিক্ষকদের চলমান কর্মসূচী অব্যাহত : ক্লাস পরীক্ষা বর্জন

যবিপ্রবি প্রতিনিধি : শিক্ষককে হুমকি, শিক্ষক সমিতির মানববন্ধনে হামলা ও উপাচার্য সহ দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়  শিক্ষক কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমিতির পক্ষ থেকে  দোষীদের বিচারের জন্য  ৭২  ঘণ্টার  যে আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছিল  এখন পর্যন্ত  বিচার না হওয়ায় আজ ২১ জানুয়ারি  রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী ভবনের সামনে  বিক্ষোভ সমাবেশ  ও মৌন মিছিল করা হয় এবং আগামী শনিবার পর্যন্ত  সকল ক্লাস-পরীক্ষা না নেয়ার   ঘোষণা দেয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার ব্যানারে আজকের  মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. ইকবাল কবির জাহিদ, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড.নাজমুল হাসান,বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী  হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারী, বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতির সভাপতি সাজেদুর রহমান জুয়েল।

ড. নাজমুল হাসান বলেন, শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাস-পরীক্ষার বাইরে রেখে আমরা ভালো নেই। শিক্ষকদের উপর হামলা, শিক্ষকদের  অপমান এরকম পরিস্থিতি যাতে আর কখনো না হয় সেজন্য এবং দোষীদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি অব্যাহত রাখলাম। শনিবারের মধ্যে একটা ব্যবস্থা না নিলে তিনি আরো কর্মসূচি কঠোর কর্মসূচি নেয়ার কথা বলেন। ২৫ তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের ব্যাপারে তিনি বলেন, “আমাদের যে মানসিক পরিস্থিতি এই পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন করা সম্ভব নয়।

তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন করব তবে দোষীদের বিচার হওয়ার পর।  এ সময় তিনি বিভিন্ন কারণে বিভিন্ন দিবস স্থগিত করে পরে উদযাপনের উদাহরণ দেন।

এ সময় হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারী বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাই বঙ্গবন্ধু অন্তঃপ্রাণ, শেখ হাসিনা অন্তঃপ্রাণ। সেখানে কিভাবে   নৌকা প্রতীক অপমান হতে পারে।  এমন ভিত্তিহীন কথার  যৌক্তিক সমাধান দাবি করেন। তিনি আরো বলেন শহরের হস্তক্ষেপ না, শহরের সহযোগিতা নিয়ে, যশোরবাসী কে নিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে যেতে চাই এবং আমরাও অতি দ্রুত ক্লাসে ফিরে যেতে চাই।

বিক্ষোভ সমাবেশ ও মৌন মিছিল কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে মেডিকেল সেন্টারের সামনে দিয়ে প্রশাসনিক ভবন অতিক্রম করে লাইব্রেরী ভবনের সামনে গিয়ে শেষ করা  হয়।