২৫, জানুয়ারী, ২০২০, শনিবার | | ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন আশিকুর রহমান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম অধিনায়ক খন্দকার আবদুল বাতেনের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মৃতিচারণ ও দোয়া মাহফিল চৌগাছা রিপোর্টার্স ক্লাবের নব নির্বাচিতদের শপথ নদীকে তার আপন গতিতে চলার দিক-নির্দেশনা দিলেন নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান বোধনের আয়োজনে "চট্টগ্রাম গণহত্যা দিবস"-এর অনুষ্ঠান কুমিল্লার দেবিদ্বারে ২১০জন মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে হাকিম ভুইয়া স্মৃতি মেধা বৃত্তি`র সনদ ও পুরুস্কার বিতরণ বগুড়া সদরে দিনদুপুরে হত্যাকান্ড ! যুবলীগ নেতা গ্রেফতার নক্ষত্র ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থীদের পুরস্কার প্রদান

খুলনা বিভাগে গত বছর সড়কে নিহত ৩৯২

আপডেট: জানুয়ারি ৩১, ২০১৯

খুলনা বিভাগে গত বছর সড়কে নিহত ৩৯২

স্টাফ রিপোর্টার:খুলনা বিভাগে গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ৩৯২ জন এবং আহত হয়েছে ১ হাজার ৫১ জন। বিভাগে যশোর, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলায় সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা বেশি। বেশি নিহত হয় পথচারি। মুখোমুখি সংঘর্ষে এবং খাদে পড়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে। সড়ক দুর্ঘটনার মতো ভয়াবহ সমস্যার সুষ্ঠু এবং ন্যায় বিচারের স্বার্থে আলাদা আদালত প্রতিষ্ঠা জরুরি।এ সব তথ্য জানানো হয় মঙ্গলবার খুলনা বিভাগের ২০১৮ সালের সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান ও সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের সরকারিভাবে আর্থিক সহায়তা করার দাবি জানিয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে। খুলনা প্রেস ক্লাবের শহীদ হুমায়ূন কবীর বালু মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ১১টায় নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) খুলনা জেলা শাখা এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিসচা’র জেলা উপদেষ্টা ও সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. মোঃ সাইফুল ইসলাম। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তৃতায় বলা হয়, ২০১৮ সালে ছোট বড় সড়ক দুর্ঘটনায় জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত নিহত ৬৯ জন এবং আহত ২৩৭ জন, এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত নিহত ৯২ জন এবং আহত ৪৩২ জন, জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত নিহত ১১১ জন এবং আহত ১৭৪ জন, অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত নিহত ১২০ জন এবং আহত ২০৮ জন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত বছর খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় মোট নিহত ৩৯২ জন এবং আহত ১০৫১ জন।লিখিত বক্তৃতায় আরও বলা হয়, দেশের সড়ক দুর্ঘটনারোধে নতুন যে আইন পাস হয়েছে তার সঠিক ব্যবহার। দক্ষ চালক তৈরি করতে সরকারি উদ্যোগ এবং সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত আহত তথা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের সরকাররিভাবে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার দাবিও জানানো হয়।খুলনা ওয়াসা কর্তৃক দীর্ঘদিন ধরে নগরীর সড়কগুলো খোঁড়াখুঁড়ির ফলে খুলনা মহানগরীর সড়কগুলো ভোগান্তিতে পরিণত হয়েছে। এর ফলে প্রতিদিন কোনো না কোনো সড়কে দুর্ঘটনা ঘটছে। অবিলম্বে এ বিষয়ে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেককে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হয়। সেই সাথে নগরীর ফুটপাত দখল মুক্ত এবং ইজিবাইক নিয়ন্ত্রণ করায় মেয়রকে ধন্যবাদ জানানো হয়।নিসচা’র জেলা উপদেষ্টা ও সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, খুলনায় সড়ক দুর্ঘটনা রোধসহ সড়ক সংস্কার এবং নগরবাসীর সকল অসুবিধার পক্ষে কাজ করা হবে। সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে এমন সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে ধীরে ধীরে সকলকে সাথে নিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করা হবে।বিআরটিএ’র খুলনা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মোঃ জিয়াউর রহমান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সরকার সচেষ্ট রয়েছে। নানা ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। ধীরে ধীরে সড়কের সকল সমস্যার সমাধান করা হবে।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএ-এর খুলনা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মোঃ জিয়াউর রহমান, নিসচা’র জেলা সভাপতি মোঃ হাছিবুর রহমান হাছিব, সাধারণ সম্পাদক এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, গোপালগঞ্জ জেলা কল্যাণ সমিতির সভাপতি আলহাজ আবেদ আলী, নিসচা’র মোঃ সেলিম খান, মোঃ হায়দার আলী, এসএমএ রহিম, এম মোস্তফা কামাল, জিএম মহিউদ্দিন, কামরুল কাজল, আনোয়ারা পারভীন আক্তার পরী, শিরিনা পারভীন, সাহানা পারভীন, মোঃ ফিরোজ আলী প্রমুখ।


আরও পড়ুন