২৩, জানুয়ারী, ২০২১, শনিবার | | ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছে না

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৯

সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছে না

মো;তৌহিদুর রহমান তাহসিন,মহানগরীয় প্রতিবেদক খুলনা;ফুলতলায় দুই চিকিৎসকসহ নিহত ৩,চুকনগরে ট্রাকের ধাক্কায় স্বাস্থ্যকর্মীর মৃত্যু,যশোর, সাতক্ষীরায় নিহত দুই!খুলনায় সড়কে মৃত্যু যেন থামছেই না। যত দিন যাচ্ছে, বড় হচ্ছে ‘মৃত্যুর মিছিল’। একের পর এক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ছে। সোমবার বিকেলে নওয়াপাড়ার একটি ক্লিনিকে জরুরি অপারেশনের জন্য খুলনার দুই চিকিৎসক ডা. শাহাদাত হোসেন এবং ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন সেখানে যাচ্ছিলেন। ফুলতলার বেজেরডাঙ্গায় অন্য একটি গাড়িকে অতিক্রম করার সময় তাদের বহনকারী প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রণ হারালে বিপরীত দিক থেকে আসা গড়াই পরিবহণের বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই দুই চিকিৎসকসহ প্রাইভেটকার চালক নিহত হয়। এই দুর্ঘটনা জানাজানি হলে খুলনার স্বাস্থ্যক্ষেত্রে শোকের ছায়া নেমে আসে।এর আগে একই দিন সকালে খুলনার চুকনগরে সড়ক দুর্ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম নামের এক মোটরসাইকেল আরোহি নিহত হন। তিনি যশোরের সুফলাকাঠি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের স্বাস্থ্য সহকারী ছিলেন। আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় যশোর ও সাতক্ষীরায় নিহত হয়েছেন আরও দুইজন। এছাড়া গত ১১ ফেব্রুয়ারি রাতে খুলনায় মানসিক ভারসাম্যহীন পথচারিকে বাঁচাতে গিয়ে ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষে প্রাইভেটকারের আরোহি গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ৫ নেতাকর্মী নিহত হয়। এরপরই আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় খুলনা বিএল কলেজের শিক্ষক, খুলনা মেডিকেল কলেজের ছাত্রী ও ডুমুরিয়ায় পিনিকের বাস উল্টে স্কুলছাত্র নিহত হয়।নিহত ৩ : খুলনার ফুলতলায় যাত্রীবাহি বাস ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চিকিৎসকসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের সকলেই প্রাইভেটকারের যাত্রী। সোমবার বিকেলে ফুলতলা বেজেরডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- খুলনার গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক সার্জন ডা. শাহাদাত হোসেন (৬০), খুলনা সদর হাসপাতালের সাবেক এনেসথিসিয়া চিকিৎসক ও কিওর হোম ক্লিনিকের একাংশের মালিক ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন (৬২) এবং প্রাইভেটকার চালক জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৫)। এদের বাড়ি খুলনা মহানগরীর সাউথ সেন্ট্রাল রোড, করিমনগর ও উত্তর মুজগুন্নী এলাকায়।জানা যায়, কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহি গড়াই পরিবহণ (রাজশাহী মেট্রো ব ১১-০০৩৮) ও নওয়াপাড়াগামী প্রাইভেটকারের (ঢাকা মেট্রো গ ১৩-৬৮৭০) সংঘর্ষে দুর্ঘটনাটি ঘটে। নওয়াপাড়ার একটি ক্লিনিকে জরুরি অপারেশনের জন্য ওই দুই চিকিৎসক সেখানে যাচ্ছিলেন। ঘটনাস্থলে অন্য একটি গাড়িকে অতিক্রম করার সময় প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় বলে স্থানীয়রা জানায়। ফুলতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, বেপরোয়া গতির বাসটির সাথে প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাইভেটকারে থাকা তিনজন নিহত হয়েছেন। পুলিশ বাসটিকে আটক করেছে।স্বাস্থ্যকর্মী নিহত : খুলনার ডুমুরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম (৪০) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহি নিহত হয়েছেন। সোমবার সকালে যশোর-চুকনগর সড়কের নরনিয়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জাহিদুল ইসলাম যশোরের সুফলাকাঠি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সহকারী ও একই এলাকার নজরুল ইসলাম মোল্লার ছেলে।চুকনগর হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. ওমর ফারুক জানান, সকালে জাহিদুল মোটরসাইকেলে খুলনার চুকনগর থেকে যশোরের কেশবপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে চুকনগরের নরনিয়া মহাসড়কে ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ হয়। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে।মোটরসাইকেল চালক নিহত : সাতক্ষীরায় ট্রাকের ধাক্কায় আফসার সরদার (৩৫) নামে এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল আরোহি আরও দুইজন। রোববার গভীর রাতে শহরের চায়না বাংলা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত আফসার সরদার আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি গ্রামের আরশাদ সরদারের ছেলে। আহতরা হলেন ওই গ্রামের স্বপন দাশ (৩২) ও তার দাদিশাশুড়ি গীতা দাশ (৬০)। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সাতক্ষীরা শহরের খুলনা রোড মোড়ের একটি ক্লিনিক থেকে রাতে স্বপন দাশ ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলযোগে তার দাদিশাশুড়ি গীতা দাশকে নিয়ে বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে চায়না বাংলা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে পৌঁছালে পেছন দিক থেকে একটি ট্রাক ওভারটেক করার সময় তাদের বহনকারী মোটরসাইকেলে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে চালক আফসার সরদার গুরুতর আহত হন। পরে তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় আহত হন মোটরসাইকেল আরোহি স্বপন দাশ ও গীতা দাশ।শিশু নিহত : যশোরের চৌগাছায় আলমসাধু উল্টে আবু মুসা নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে চালক মনিরুল ইসলাম। রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের জামতলা নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আহত চালককে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের স্বজনরা জানান, রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের মাঠচাকলা গ্রামে একটি ধর্মসভা চলছিল। ওই সভায় মুসল্লিদের আনা নেওয়ার কাজে ছিল আলমসাধু চালক হাজিপুর গ্রামের মনিরুল ইসলাম (২০)। শখের বশে ওই আলমসাধুতে উঠে বসেন চালকের চাচাতো ভাই একই গ্রামের মুক্তার আলীর ছেলে আবু মুসা (১৩)। রাত সাড়ে ১২টার দিকে আলমসাধু স্থানীয় জামতলা নামক স্থানে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে উল্টে যায়। এ সময় আলমসাধু চাপা পড়ে শিশু আবু মুসা ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় চালক মনিরুল ইসলাম। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চৌগাছা হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু আবু মুসাকে মৃত ঘোষণা করেন।