২৯, অক্টোবর, ২০২০, বৃহস্পতিবার | | ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক দল পেলেন না এবারের বিপিএলে

আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০১৮

বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক দল পেলেন না এবারের বিপিএলে
রিয়াদ খান, সরকারি সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ প্রতিনিধি: সাম্প্রতিক বিপিএল ৬ষ্ঠ আসরের প্লেয়ার ড্রাফট সম্পন্ন হয়েছে। সাতটি ফ্রাঞ্চাইজি পছন্দ মতো প্লেয়ার নিয়ে দল গোছানোর কাজ শেষ করলেও এখনো কোনো দলে জায়গা হয়নি বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি দলের প্রথম অধিনায়ক ও বিপিএলে সেঞ্চুরি করা প্রথম বাংলাদেশী শাহরিয়ার নাফিসের। এ নিয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে ক্রিকেট পাড়ায়, নাফিস ভক্তদের তো বটেই!
২০০৫ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হওয়ার পর থেকে চোখ ধাধানো ব্যাটিং নৈপুণ্য দেখিয়ে জয় করে নেন ক্রিকেট প্রেমিদের মন। এরপর ২০০৬ সালে প্রথম বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসেবে এক পঞ্জিকা বর্ষে এক হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করে অনন্য কৃতিত্ব অর্জন করেন। দেশের হয়ে একমাত্র টি-টুয়েন্টি ম্যাচে ১৪৭.১ স্ট্রাইক রেটে ২৫ রানের ইনিংস খেলেন ২০০৬ সালে। এর পর আর জাতীয় দলের জার্সি গায়ে টি-টুয়েন্টিতে মাঠে নামার সুযোগ হয়নি তার। তবে ৭৫ টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৩১.৪ ব্যাটিং গড়ে ২২০১ রান করেন, যার মধ্যে ৪টি সেঞ্চুরি এবং ১৩টি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে। এছাড়াও ২১টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ২৬.৮০ ব্যাটিং গড়ে ১১২৬ রান করেন। যার মধ্যে ১টি সেঞ্চুরি এবং ৭টি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে।
ঘরোয়া লিগে নিয়মিত পার্ফর্মেন্স করতে থাকা শাহরিয়ার নাফিস এবারের বিপিএল প্লেয়ার ড্রাফট থেকে দল না পাওয়ায় বেশ অবাক হয়েছেন, বললেন তিনি নিজেই। এছাড়াও তিনি আরো বলেছেন “বিপিএলে আমার আগের পাঁচ টুর্নামেন্টের পরিসংখ্যান দেখুন। রান সংখ্যায় বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে আমি সম্ভবত ১১ নম্বরে। ৪৩টির মতো ম্যাচ খেলেছি; রান করেছি সাড়ে নয় শর ওপরে। আগের ১০ জনের মধ্যে শুধু তামিম ছাড়া বাকি সবাই আমার চেয়ে অনেক বেশি ম্যাচ খেলেছে। এই রেকর্ডের কথা দলগুলো জানে কি না, জানি না। জানলে কোনো দলই আমাকে নেবে না, এটি অবশ্যই আমাকে অবাক করেছে।”
তবে আশার আলো হচ্ছে, এবারের আসরে অংশগ্রহণকারি সাতটি দলের মধ্যে একমাত্র সিলেট সিক্সার্স ব্যাতিত বাকি দলগুলোর এখনো একাধিক প্লেয়ার দলে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ রয়েছে।
বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমিদের আশা এবারের বিপিএলেও ব্যাট হাতে গ্যালারী মাতাবেন শাহরিয়ার নাফিস।