২৯, অক্টোবর, ২০২০, বৃহস্পতিবার | | ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

দুর্গাপুরে শিক্ষার্থীকে ইভটিজিং করার প্রতিবাদ করায় চাচাকে মারধোর

আপডেট: মার্চ ২৪, ২০১৯

দুর্গাপুরে শিক্ষার্থীকে ইভটিজিং করার প্রতিবাদ করায়  চাচাকে মারধোর


আব্দুল নূর,জেলা প্রতিনিধি:নেত্রকোনার জেলার  দুর্গাপুরে নবম শ্রেণীর  এক শিক্ষার্থী কে উত্ত্যক্ত করার সময় প্রতিবাদ করায়  চাচাকে মারধোরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সদর ইউনিয়নের ফারংপাড়া গ্রামের নবম শ্রেণি পড়ুয়া শিক্ষার্থীকে স্কুলে আসা যাওয়ার পথে প্রায়সময়  বিরক্ত করতো পাশের গ্রামের ইকবাল হোসেন (১৯)। পেশায় সে একজন অটোচালক।মেয়ের  বাবার ফোনে প্রায়ই ফোন করতো ওই বখাটে আব্দুল আলীর পুত্র ইকবাল হোসেন। বিষয়টি নিয়ে ইকবালের সাথে মুঠোফোনে কথা হয় শিক্ষার্থীর চাচা এইচ এস সি পরীক্ষার্থী শাহ পরানের। মোবাইল ফোনে কথা বলাকে কেন্দ্র করে গত ১৯ মার্চ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময়ে একই ইউনিয়নের আগার গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের পুত্র মোবারকের নেতৃত্বে ইকবাল,রমজান আলী, আজিজুল, মজিত খাঁ, আতিক মিয়া, সাদেক মিয়া, আলাল খাঁসহ অজ্ঞাত ৪/৫জন বখাটে নিয়ে তিনআলী বাজারের ইসলাম উদ্দিনের দোকানে বসা অবস্থায় এলোপাতারী আঘাত করে শাহ্ পরানের উপর।  তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন দৌঁরে এলে ঘটঁনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় ওই দুর্বৃত্তরা। মুমূর্ষ অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ নিয়ে শাহ্ পরানে বাবা বাদী হয়ে ৯জন কে বিবাদী করে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করলে প্রাথমিক তদন্তের পর মামলাটি আমলে নিয়ে গতকাল ২২(ফেব্রুয়ারী)শুক্রবার  রাতে ওই মামলাটি রেকর্ড করে পুলিশ। হামলার শিকার হওয়া শাহ্ পরান চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলেও জানা গেছে।এ ব্যাপারে আগাড় অর্নিবাণ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের বলেন,আমি ঘটনার বিষয়টি শুনেছি। তবে যাকে নিয়ে ঘটনাটি ঘটেছে সে আমার বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।এ বিষয়ে দুর্গাপুর থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুল আলম বলেন, এ বিষয়ে দুর্গাপুর থানায় শুক্রবার একটি মামলা দায়ের হয়েছে। যার নং-১৬।