১০, মে, ২০২১, সোমবার | | ২৮ রমজান ১৪৪২

সরকারি বাঙলা কলেজ এর আদ্যোপান্ত

আপডেট: মে ৮, ২০১৯

সরকারি বাঙলা কলেজ এর আদ্যোপান্ত

সরকারি বাঙলা কলেজ বাংলাদেশের ঢাকা শহরে অবস্থিত একটি সরকারি কলেজ যা ১৯৬২ সালের ১লা অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষায় কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ভাষাকে মাধ্যম হিসেবে পরিচয় করার চাহিদা থেকে প্রিন্সিপাল আবুল কাসেম এই কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন।[১]ধরনসরকারিস্থাপিত১ অক্টোবর ১৯৬২অধ্যক্ষডাঃ ফেরদৌসী খানঅ্যাকাডেমিক কর্মকর্তা২১প্রশাসনিক কর্মকর্তা৪০০স্নাতক২৫,০০০স্নাতকোত্তর৫,০০০অবস্থানমিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশশিক্ষাঙ্গনশহরঅধিভুক্তিঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়বর্তমানে কলেজটিতে উচ্চমাধ্যমিক সহ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। ১৯৮৫ সালে কলেজটিকে সরকারিকরন করা হয় এবং ১৯৯৭ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভূক্ত করে কলেজটির স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। তবে ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ খ্রিঃ হতে কলেজটির স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্স ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভুক্ত করা হয়।
ইতিহাস সম্পাদনাপ্রিন্সিপাল আবুল কাশেম বাংলা ভাষা আন্দোলনের একজন ভাষা সৈনিক যিনি ১৯৬২ সালে বাঙলা কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৬৪ সালে বাঙলা কলেজ মিরপুরে স্থানান্তরিত হয়। এর আগে প্রতিষ্ঠাকালীন বছরে এর ক্লাস হতো নবকুমার ইন্সটিটিউটে রাতের শিফটে।[২] ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা বাঙলা কলেজকে একটি বধ্যভূমি হিসাবে ব্যবহার করেছিল।
বাঙলা কলেজ প্রতিষ্ঠার শুরুতে শিক্ষিত বাঙালি বিদ্বান ব্যক্তিদের কেউ কেউ বিরোধিতায় নেমেছিলেন। তাঁদের যুক্তি ছিল, বাংলা মাধ্যমে লেখাপড়া করলে ছাত্র-ছাত্রীরা চাকরি ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়বে। এমনকি ‘বাঙলা মৌলবি’ জন্ম হবে বলেও ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ করতেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও বাঙলা মাধ্যমে শিক্ষা গ্রহণ দ্রুতই জনপ্রিয়তা লাভ করে।
১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ’র সময় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসর অবাঙালি বিহারীরা বাঙলা কলেজ দখল করে নেয়। দীর্ঘ নয় মাস অবরুদ্ধ ছিল এ কলেজটি, কলেজের সাইনবোর্ড নামিয়ে এ সময় ‘উর্দু কলেজ’ সাইনবোর্ড লাগানো হয়।
বিভাগ ও অনুষদসমূহ সম্পাদনাবিজ্ঞান অনুষদরসায়ন বিভাগপদার্থবিজ্ঞান বিভাগগণিত বিভাগমৃত্তিকাবিজ্ঞান বিভাগপ্রাণিবিজ্ঞান বিভাগউদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগকলা ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদইংরেজি বিভাগবাংলা বিভাগরাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগসমাজকর্ম বিভাগইতিহাস বিভাগদর্শন বিভাগইসলামিক স্টাডিজইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগবাণিজ্য অনুষদহিসাববিজ্ঞান বিভাগফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগঅর্থনীতি বিভাগমার্কেটিং বিভাগব্যবস্থাপনা বিভাগউচ্চমাধ্যমিক শ্রেণীবিজ্ঞানবাণিজ্য ওমানবিকআবাসন ও যাতায়াত ব্যবস্থা সম্পাদনাযাতায়াত ব্যবস্থাঃঢাকার মিরপুর ১ দারুস সালাম বাসস্ট্যান্ড থেকে ৫০ গজ দক্ষিণে রাস্তার পশ্চিম পাশে সরকারী বাংলা কলেজের অবস্থান। শহরের প্রাণকেন্দ্রে এর অবস্থান বলে যেকোনো যায়গা হতেই সহজেই কলেজে আসা যাওয়া করা যায়। কলেজের ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য রয়েছে “বিজয়” নামের একটি বাস যা শিডিউল অনুযায়ী শহরের নির্ধারিত রুট হতে ছাত্র/ছাত্রীদের কলেজ ক্যাম্পাসে নিয়ে আসে এবং ক্যাম্পাস হতে নিয়ে যায়। এছাড়াও ক্যাম্পাসের রুটে অনেক লোকাল ও সিটিং সার্ভিস বাস ও বি আর টি সি বাস প্রতিনিয়ত চলাচল করে। যা ব্যবহার করেও ছাত্র/ছাত্রীরা কলেজ ক্যাম্পাসে আসা যাওয়া করে থাকে।
আবাসন ব্যবস্থাঃবর্তমানে কলেজটিতে আবাসিক ভাবে থাকার জন্য শুধুমাত্র ছাত্রদের জন্য “প্রিন্সিপাল অাবুল কাশেম হল” নামের একটি হল আছে। সম্প্রতি সময়ে সরকারি অনুদানে শেখ কামাল হল তৈরির কাজ চলমান রয়েছে।