১৪, মে, ২০২১, শুক্রবার | | ২ শাওয়াল ১৪৪২

জাবিতে আজীবন সন্মাননা পেলেন গোলাম রহমান ও মাহফুজ আনাম

আপডেট: জানুয়ারি ২৪, ২০১৯

জাবিতে আজীবন  সন্মাননা পেলেন গোলাম রহমান  ও মাহফুজ আনাম

জাবিতে আজীবন সন্মাননা পেলেন গোলাম রহমান ও মাহফুজ আনাম

মো. ফারুক হোসেন, জাবি প্রতিনিধিঃজাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগ’ এর ৮ম বছরে পদার্পণ করল। বুধবার (২৩ ডিসেম্বর)  দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে বিভাগটি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আজীবন সন্মাননা দেয়া হয় ড. গোলাম রহমান ও মাহফুজ আনামকে

এদিন বেলা ১১ টায় বিভাগের সেমিনার কক্ষে বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সালমা আহমেদ ও শেখ আদনান ফাহাদের সঞ্চালনায় ‘সাংবাদিকতা শিক্ষা ও পেশাগত চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে বাংলাদেশের সাংবাদিকতার একাডেমিক ও পেশাগত পরিসরে অসামান্য অবদান রাখায় বিভাগের পক্ষ থেকে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা সাবেক তথ্য কমিশনার অধ্যাপক ড. গোলাম রহমান ও ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহফুজ আনামকে ‘আজীবন সম্মাননা-২০১৮’ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব উজ্জ্বল কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে কলা ও মানবিকী অনুষদের ডিন অধ্যাপক মোজ্জামেল হক, সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের সকল শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক তথ্য কমিশনার বলেন, ‘বস্তুনিষ্ঠতাই সাংবাদিকতার মূল বিষয়। এটি ছাড়া সঠিক সাংবাদিকতা সম্ভব নয়। গণমাধ্যমে সত্যের অপলাপ ও ফরমায়েশি সাংবাদিকতা কাম্য নয়। অপসাংবাদিকতা সমাজ, দেশ তথা মানব সভ্যতাকে কুলুষিত করে। সত্যের জয় সবসময় নিশ্চিত। তাই সত্য প্রকাশ করা ও সত্য অনুসন্ধান করাই সাংবাদিকতার একমাত্র কাজ।’

ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহফুজ আনাম তার বক্তব্যে বলেন, ‘সাংবাদিকতার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা সবসময় আদর্শ অবস্থা নিয়ে কথা বলে। তবে পেশাগত বাস্তবতা থাকে অন্যরকম। ফলে শিক্ষার্থীরা পেশাগত জীবনে প্রবেশ করে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে এবং এই চ্যালেঞ্জ নিয়েই তাদের কাজ করতে হয়। ফলে একাডেমিক পরিসরেই তাত্ত্বিক আলোচনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের পেশাগত বাস্তবতার সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে হবে।’ আলোচনা সভা শেষে বিভাগের নতুন ওয়েবসাইট ‘জেএমএস পেন’ এর উদ্বোধন করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে দশটায় পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন ঘোষণা করেন বিশেষ অতিথি সাবেক তথ্য কমিশনার অধ্যাপক ড. গোলাম রহমান এবং দ্য ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহফুজ আনাম। পরে বিভাগীয় শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অতিথিদের অংশগ্রহণে একটি আনন্দ র্যালি বের হয়। র্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে কলা ও মানবিকী অনুষদ ভবন হয়ে নতুন ও পুরাতন প্রশাসনিক ভবন ও ট্রান্সপোর্ট চত্বর প্রদক্ষিণ করে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগে এসে শেষ হয়