২৮, নভেম্বর, ২০২০, শনিবার | | ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

টাঙ্গাইল শহরে ৩ মিনিটে ৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

আপডেট: নভেম্বর ২০, ২০২০

টাঙ্গাইল শহরে ৩ মিনিটে ৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইল শহরে তিন মিনিটে তিনটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সোমবার (১৬ নভেম্বর) দিবাগত গভীর রাতে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে ভুক্তভোগী সদর উপজেলার বাসাখানপুর গ্রামের মো. মহির উদ্দিনের ছেলে দয়াল হোসেন (২৯) বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি ছিনতাই মামলা দায়ের করেন।মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে পুলিশ গ্রেপ্তার তিন আসামিকে আদালতে পাঠায়। আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেন। রোববার (১৫ নভেম্বর) সকালে টাঙ্গাইল শহরের কলেজপাড়া এলাকায় ছিনতাই সংঘটিত হয়।টাঙ্গাইল সদর থানার এসআই মো. মোরাদুজ্জামান আসামিদের কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন, টাঙ্গাইল শহরের দিঘুলিয়া মধ্যপাড়া এলাকার মৃত প্রদীপ মিয়ার ছেলে মো. কলিং (৩৩), থানাপাড়া এলাকার মো. শহিদুল ইসলাম স্বাধীনের ছেলে মো. শাহেদ (৪০), বেপাড়ীপাড়া এলাকার সিরাজ মিয়া ওরফে শিরু মিয়ার ছেলে কালো সজিব (৩০)। অপর আসামি দক্ষিণ কলেজপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে মো. রফিক (৩৫) পলাতক রয়েছেন।মামলার অভিযোগে জানা গেছে, রোববার (১৫ নভেম্বর) ভোরে দয়াল হোসেন তার চাচাকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি থেকে করটিয়া যাওয়ার সময় শহরের কলেজপাড়া এলাকায় পৌঁছালে ছিনতাইকারীরা ছুরি, চাপাতি ও রড নিয়ে তাদের পথরোধ করে একটি স্মার্ট ফোন ও নগদ ১৭৫০ টাকা ছিনতাই করে। এ ঘটনায় দয়াল হোসেন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। পরে ঘটনাস্থলের পাশের ভবনের সিসিটিভির ফুটেজ দেখে পুলিশ ছিনতাইকারীদের শনাক্ত করে। ওই ফুটেজে দেখা যায়, ওই ছিনতাইকারীরা প্রথম ছিনতাইয়ের পরে তিন মিনিটের মধ্যে একইস্থানে এক সাইকেল আরোহী ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার আরোহীদের কাছ থেকেও ছিনতাই করে। এই তিন ছিনতাইয়ের ফুটেজ ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে।  এসআই মো. মোরাদুজ্জামান এবং এএসআই দেলোয়ার হোসেন জানান, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে প্রথমে মো. কলিংকে গ্রেপ্তার করে ছিনতাইকৃত স্মার্ট ফোন ও নগদ ১০০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী শাহেদ ও কালো সজিবকে গ্রেপ্তার করা হয়। অপর আসামিকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।